কলকাতা: নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর থেকে উত্তাল গোটা দেশ। বিভিন্ন জায়গাতে শুরু হয়েছে প্রতিবাদ।এছাড়াও দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের উপরে হওয়া পুলিশি আক্রমণের বিরুদ্ধেও সরব হয়েছেন বুদ্ধিজীবীদের একাংশ। অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহানও এই আইনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

এই আইনের প্রতিবাদ স্বরূপ নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলনে যোগ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন নুসরত। যা ইতিমধ্যে যথেষ্ট ভাইরাল হয়েও গিয়েছে। সাধারণ মানুষকে আইন নিজের হাতে না তুলে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী সাংসদ।

কয়েকদিন ধরে কলকাতার রাজপথে মিছিল করে এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তৃণমূল সরকার। আর সেই মিছিলে পা মিলিয়েছেন সাধারণ মানুষ থেকে বুদ্ধিজীবীরা। একই সঙ্গে রাজধানী দিল্লিতেও চলছে এই আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রত্যাহারের দাবিতে দফায় দফায় পথে নেমেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার ওই একই আইনের বিরোধিতায় মিছিলে হাঁটবেন মমতা। মিছিল শেষে ফের বক্তব্য রাখবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাগরিক আইন-এনআরসি প্রসঙ্গে অমিত শাহকে বিঁধে এর আগে জানিয়েছিলেন বলেন, “আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, দেশে আগুন লাগানো আপনার কাজ না সেটা আপনি বুঝুন।”

তৃণমূল সুপ্রিমো জানিয়েছিলেন, “হিংসা চাই না বলেই আন্দোলনের পথে নেমেছি৷ এক হাজার বুলেটের যা দাম, দশটা মানুষ পথে নেমে কথা বললে তার দাম বেশি৷” আর তারপরে তৃণমূলের এই সাংসদের করা টুইট যে নজর কাড়বে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তৃণমূললনেত্রীর সঙ্গেই কেন্দ্রের আইনের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন কলকাতার টলি দুনিয়ার একাধিক ব্যক্তিত্ব। এবার সাংসদ নুসরতের করা এই টুইট যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।