কলকাতা: নিজেকে ভগবানের সন্তান বলে পরিচয় দিয়েছিলেন নুসরত জাহান। ধর্ম নির্বিশেষে কোনও উৎসবই বাদ দেন না তিনি। এবারও অঞ্জলি দিলেন অষ্টমীতে।

অন্যান্যবারের মতই স্বামী নিখিল জৈনের সঙ্গে অঞ্জলি দিতে গিয়েছিলেন নুসরত। এমনকি সেখানে ঢাকের তালে নুসরতকে নাচতেও দেখা গিয়েছে। ঢাকে কাঠি দেন স্বামী নিখিল।

এর আগে বারবার কট্টরপন্থীদের রোষের মুখে পড়েছেন নুসরত। কখনও সিঁদুর খেলায়, কখনও রথে সামিল হতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।

এবছরও মহালয়ায় দুর্গা সেজে ছবি তুলে রোষের মুখে পড়েন তিনি। একের পর এক ‘ধর্মবিরোধী’ আচরণ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানের ওপর রীতিমত ক্ষুব্ধ হন দেওবন্দের ইসলাম ধর্ম প্রচারক। নুসরতের সমালোচনা করে বিতর্ক তৈরি করেন মৌলানা ইশাক গোরা।

এরই সঙ্গে মহালয়ার দিন নিজের ভক্তদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ছিলেন এই সাংসদ। সব মিলিয়েই তুমুল সমালোচনার মুখে পড়তে হয় নুসরতকে। মৌলানা ইশাক গোরা জানাচ্ছেন মা দুর্গার ভূমিকায় অভিনয় করে ইসলাম বিরোধী কাজ করেছেন নুসরত। যা কখনই মেনে নেওয়া যায় না।

নুসরতকে আক্রমণ করে ওই মৌলানা বলেন, অভিনেত্রী এসব করে আনন্দ পান। সবসময় বিতর্কের মধ্যে থাকতে ভালোবাসেন। কিন্তু তিনি জানেন না যে মানুষ কতটা খারাপ চোখে দেখছে তাঁর এই কাজগুলো। সাধারণ মুসলিমদের কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত। এই ধরণের কাজ ইসলামে নিষিদ্ধ, পুরোপুরি ইসলাম বিরোধিতার পথে হাঁটছেন তিনি।

উল্লেখ্য মহিষাসুরমর্দিনীর ভূমিকায় ছবি তুলে রীতিমত ক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে নুসরতকে। প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তাঁর কাছে বার্তা আসছে বলে জানা গিয়েছে। মহালয়া অর্থাৎ ১৭ সেপ্টেম্বর দুর্গা ঠাকুরের একটি ছবি পোস্ট করে বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন তিনি। সেই ছবিটি ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নানারকম ট্রোলিং শুরু হয় অভিনেত্রীকে ঘিরে।

মহালয়া উপলক্ষে বেশ কয়েকটি ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করেছেন নুসরাত। রঙ্গোলি শাড়ির ব্র্যান্ডের পক্ষ থেকে নুসরত এই ভিডিওগুলি শেয়ার করেন। নুসরতের সাজ দেখে বোঝা যায় তিনি মহামায়ার বেশ ধরেছেন। আর এখান থেকেই যত সমস্যার সূত্রপাত। আবহে বাজছে রূপং দেহি জয়ং দেহি গান, আর নুসরতকে দেখা যাচ্ছে হাতে ত্রিশূল নিয়ে।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I