স্টাফ রিপোর্টার, মহিষাদল: শ্বাসকষ্ট জনিত রোগ নিয়ে শনিবার সকালে মহিষাদলের একটি নার্সিংহোমে ভরতি করা হয়েছিল মহিষাদলের জগন্নাথপুর গ্রামের বাসিন্দা শেখ আবু বক্করের স্ত্রী রওশনা বিবিকে৷

অভিযোগ, নার্সিংহোমের চিকিৎসকদের গাফিলতিতেই রোগির মৃত্যু হয়েছে। সকাল ৯টা নাগাদ বছর ৪৫য়ের রওশনা বিবিকে শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার কারনে নার্সিংহোমে ভরতি করেন পরিবারের লোকজন। ভরতি করার কিছুক্ষনের মধ্যে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই এক নার্স রোগিকে ইঞ্জেকশন দেয় বলে অভিযোগ। আর সেই ইঞ্জেকশন দেওয়ার পরেই মৃত্যু হয় রওশনা বিবির৷

এরপরেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে৷ রোগির বাড়ির লোক নার্সিংহোমে উত্তেজনা ছড়ায়। ভাঙচুর করার চেষ্টা করে নার্সিংহোম। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় মহিষাদল থানার পুলিশ। পুলিশের সামনেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার পর নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যায়।

ঘটনার জেরে মহিষাদল- তেরপেখ্যা রাজ্য সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। পুলিশ যান চলাচলা স্বাভাবিক করার চেষ্টা করে৷ এলাকায় উত্তেজনা নিয়ন্ত্রনে আনতে মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।