স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : লকডাউন তো কি? তা বলে কি বাঘের সংখ্যা বাড়তে পারে না। হাজারও খারাপের মাঝে এটাই ভালো খবর যে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে। এমনটাই জানালেন রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷

গত বছরের তুলনায় এবছর সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছে আটটি । গত বছর ছিল ৮৮ টি । এখন তা বেড়ে হয়েছে ৯৬। আগামী দিনেও বাঘের সংখ্যা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানাচ্ছেন বনমন্ত্রী। বাঘের সংখ্যা গুনতে ১২০০ ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়। তাতে যে পরিসংখ্যান দেখা গিয়েছে সেই অনুযায়ী ওই ৯৬টি বাঘের মধ্যে বাঘিনী ৪৩টি পুরুষ বাঘ ২৩টি মহিলা, শিশু ১১টি। তবে আইডেন্টিফাই করা যায়নি ১৯ টি বাঘকে। বিট অফিসগুলিতেও প্রচুর বাঘ দেখা যাচ্ছে।

বনমন্ত্রীর দাবি, ‘ট্র্যাপ ক্যামেরার সাহায্য নিয়ে বাঘের গণনা হয়েছে৷ তাই প্রতিটি বাঘের গায়ে থাকা ডোরাকাটাদাগ দেখে বাঘের সংখ্যা গোনা হয়েছে। ফলে একই বাঘকে দু’ বার গণনা করার কোনও সম্ভাবনা নেই।’ নভেম্বর , ডিসেম্বর জানুয়ারি ফেব্রুয়ারি এই চার মাস ধরে ৩৭০০ স্কোয়ার কিলোমিটার অঞ্চল জুড়ে এই বাঘেদের গতিবিধির দিকে নজরদারি কড়া হয়েছিল। সেখান থেকেই এই তথ্য মিলেছে। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোথায়, ‘গত কয়েকবছরে এটাই সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যায় সবথেকে বেশি বৃদ্ধি হয়েছে৷ এর আগে একবছরে সাতটিবাঘ বেড়েছিল। যে পদ্ধতিতে গণনা করা হয়েছে, তাতে ভবিষ্যতে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা আরও বাড়বে।’

সারা দেশের নিরিখে ২০১৮ সালে দেশের বাঘের সংখ্যা বেড়েছিল ৭০০টি। ২০১৯ সালের আন্তর্জাতিক ব্যাঘ্র দিবসে এমনটাই জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২০১৪-র বাঘসুমারি অনুযায়ী দেশে সব থেকে বেশি বাঘ ছিল কর্নাটকে৷ সংখ্যাটি ছিল ৪০৬টি। উত্তরাখণ্ডে ৩৪০ এবং মধ্যপ্রদেশে ৩০৮টি বাঘ ছিল।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV