কলম্বো : ক্রমশ প্রভাব বাড়াচ্ছিল চিন। ভারতের প্রতিবেশি দেশগুলির ওপর প্রভাব বাড়িয়ে ভারতকে চাপে ফেলার চেষ্টা চালাচ্ছিল দীর্ঘদিন ধরেই। এবার এরই পাল্টা দিল ভারত। নয়া কূটনৈতিক চালে শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকের মাধ্যমে সম্পর্ক মজবুত করার প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে ভারত।

দুদিনের ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে যোগ দিয়েছেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বার্তা পৌঁছে দিতেই তাঁর এই বৈঠকে অংশগ্রহণ। শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের সঙ্গে বৈঠক চলবে শুক্র ও শনি, অর্থাৎ নভেম্বরের ২৭ ও ২৮ তারিখ ধরে।

গত ছয় বছর ধরেই এই দ্বীপরাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করার চেষ্টা চালাচ্ছে ভারত। সেই কাজে বেশ সফলও হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। শুক্রবার সেই প্রচেষ্টারই অংশ হিসেবে কলম্বোতে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে যোগ দিলেন দোভাল।

শ্রীলঙ্কা সেনার মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার চন্দানা বিক্রমসিংঘে জানান, শ্রীলঙ্কা এবছর চতুর্থ ন্যাশনাল সিকিওরিটি অ্যাডভাইজার সম্মেলনের আয়োজন করেছে। ভারত ও মালদ্বীপের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো ও দৃঢ় করাই লক্ষ্য কলম্বোর।

এদিকে, শুক্রবারই মালদ্বীপের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মারিয়া ডিডি ও অজিত দোভাল বিশেষ বৈঠক করবেন বলে সূত্রের খবর। এই সম্মেলনে বাংলাদেশ, মরিশাস ও সেশেলস থেকেও প্রতিনিধিরা এসেছেন বলে খবর। সামুদ্রিক জলদূষণ নিয়ন্ত্রণ থেকে চিনের খবরদারি ও দখলদারি মনোভাব প্রতিহত করা- সব বিষয়ই উঠে এই বৈঠকে।

ভারতের বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে এই সম্মেলনে ভারত মহাসাগরে সংশ্লিষ্ট দেশগুলির যৌথ মহড়ার পক্ষে সওয়াল করতে পারেন দোভাল।

এর আগে, নেপালকে পাশে পেতে নয়া কূটনৈতিক চাল খেলেছে ভারত। একদিকে নেপালের সঙ্গে পুরোনো সম্পর্ক ঝালাই করে নিচ্ছে ভারত, অন্যদিকে চিনকে টেক্কা দিয়ে ফের ভারত-নেপাল কাছাকাছি। প্রায় এক বছর ধরে উদ্ভুত করোনা পরিস্থিতির সুযোগে এবার চিনকে হঠিয়ে নেপালের দিকে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়েছে নয়াদিল্লি। সেই বার্তাই দিয়েছেন বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংগলা।

সম্প্রতি নেপাল সফরে গিয়ে শ্রিংগলা জানিয়েছেন বন্ধু দেশগুলিতে ভারত করোনার ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে। আর সেই তালিকায় একদম ওপরের দিকে রয়েছে নেপাল। ভারত যে ভ্যাকসিনে অনুমোদন দেবে, তা বন্ধু রাষ্ট্র নেপালে আগে সরবরাহ করা হবে।

শ্রিংগলা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্পষ্ট বার্তা ভারতের ভ্যাকসিন কার্যকরী ও দামে কম হবে। যা সাধারণ মানুষের উপযুক্ত হবে। আর সেই ভ্যাকসিন নেপালের মতো বন্ধু রাষ্ট্র আগে পাবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।