জলপাইগুড়ি; আত্মহত্যা কান্ডে এনআরসি তকমা মুছতে মরিয়া বিজেপি। এনআরসি-এর কারনে নয়, অন্নদা রায় মহাজনী ঋনে জর্জরিত হয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনটাই দাবি করলেন বিজেপির কৃষাণ মোর্চা। এনআরসি তকমা মুছতে মরিয়া বিজেপি।

বিজেপি’র কৃষাণ মোর্চার রাজ্য সম্পাদক অরুন মন্ডল শনিবার বিকেলে জলপাইগুড়ি প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলন ডাকেন। সেখানে তিনি অভিযোগ করেন এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একটা মহাজনী ঋনের কারনে কৃষক আত্মহত্যার ঘটনাকে এনআরসি জনিত কারনে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্ট করছেন।

আজ শনিবার বিজেপির জেলা সম্পাদক বাপী গোস্বামীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল অন্নদার বাড়িতে গেলে দেখতে পায় স্থানীয় তৃনমুল নেতারা ও পুলিশ ওই বাড়িকে ঘিরে রেখেছে, এমনটাই অভিযোগ।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, মমতাদেবী দু’লক্ষ টাকা দিয়ে এই পরিবারকে কেনার চেষ্টা করছেন। একই সঙ্গে বাপী আরও দাবি করেন, অন্নদা রায়ের পরিবারের খাস জমি। সেই জমির কোনও পাট্টা নেই। না বাম সরকার না তৃনমূলের সরকার তাদের পাট্টা দিয়েছে। পাট্টা না থাকা জমি মহাজনকে বন্ধক দিয়ে ছিলেন। কিন্তু সেই টাকা শোধ করতে পারছিলেন না বলে অভিযোগ তাঁর। আর এই সব কারনে বার বার তার সমন্ধ ভেঙে যাচ্ছিল। এইসব মিলিয়ে তার মানসিক অবসাদ ছিল বলে অভিযোগ বিজেপির।

একই সঙ্গে বাপী আরও বলেন, কোন মহাজনের কাছ থেকে কত টাকা ধার নিয়েছিলেন সেই তথ্য খুব তাড়াতাড়ি সামনে নিয়ে আসবে কিষান মোর্চা। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, রাজ্যে যে দু কোটি মুসলমান অবৈধ ভাবে ঢুকে আমাদের সুযোগ সুবিধা নষ্ট করছে এনআরসি হলে তাদের বিতারিত করা হবে।