স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মহম্মদ বিন তুঘলকের মত রাজ্য শাসন করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উঠতে-বসতে এই অভিযোগ শোনা যায় বিরোধীদের মুখে। এবার সেই একই কথা শোনা গেল মমতার এক সময়ের ‘স্নেহের কানন’ শোভন চট্টোপাধ্যায়ের গলায়। কয়েকদিন আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা বেহালা পূর্বের বর্তমান বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়।

তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানের পর রাজ্য প্রশাসনও তাঁর সঙ্গে অসহযোগিতা শুরু করে দিয়েছে বলে অভিযোগ। গতকাল অর্থাৎ শনিবার বিকেলে কোনও আগাম খবর ছাড়াই তাঁর নিরাপত্তারক্ষী তুলে নিয়েছে রাজ্য সরকার, অভিযোগ অধুনা বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। সেই অভিযোগকে সামনে রেখে কি কারণে পুলিশ প্রশাসনের এই পদক্ষেপ, তা জানতে চেয়ে ইতিমধ্যেই কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে কড়া চিঠি দিয়েছেন বেহালা পূর্বের বিধায়ক।

রবিবার সংবাদমাধ্যমকে শোভন বলেন, “গোয়েন্দাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে আমাকে এতদিন নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে। 2017 সালে জেড প্লাস নিরাপত্তা পেয়েছি আমি। কিন্তু আমি যেই অন্য দলে যোগ দিলাম তখনই আমার নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হলো। একটা প্রশাসনিক বিষয়কে রাজনীতির সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হল। আমি এখনও বিধায়ক ও কলকাতা পুরসভার কাউন্সিলর। ” এরপরই শোভন বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই যে এটা করা হয়েছে তা পরিষ্কার। মহম্মদ বিন তুঘলকের মতো আচরণ করা হচ্ছে। যখন ইচ্ছে নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে আবার যখন ইচ্ছে তুলে নেওয়া হচ্ছে।”

গতকাল গভীর রাতে পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাকে যে চিঠি শোভন দিয়েছিলেন সেখানে তিনি লিখেছিলেন , ” ১৯৯৫ সাল থেকে আমি নিরাপত্তারক্ষী পেয়ে থাকি। পরবর্তী সময়ে কলকাতার মেয়র এবং রাজ্য মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ একাধিক দফতরের মন্ত্রী হওয়ার কারণে আমাকে জেড ক্যাটাগরি নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মেয়র এবং মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করার পর সেটা ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরিতে নামিয়ে আনা হয়। এবার, গতকাল বিকেল থেকে আমার সব নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হয়েছে।” কোনও আগাম নোটিশ ছাড়াই কেন এই সিদ্ধান্ত, সেটা জানতেই সিপিকে ইমেল করেছেন সদ্য প্রাক্তন এই তৃণমূল নেতা। রবিবার সরাসরি নিশানা করলেন তাঁর মা’কে(মোবাইলে এই নামেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম সেভ করে রাখতেন শোভন)।