বেলগ্রেড: গত সপ্তাহে ক্রোয়েশিয়া থেকে দেশে ফিরেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। একইসঙ্গে করোনা আবহে চ্যারিটি টুর্নামেন্ট আদ্রিয়া ট্যুর আয়োজন নিয়ে ব্যাপক সমালোচিতও হতে হয়েছে তাঁকে। তাতে কী? অসুস্থতা নিয়েও কিন্তু দুঃসময়ে দিব্যি চ্যারিটিতে মজে রয়েছেন নোভাক জকোভিচ। করোনার জেরে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ সার্বিয়ার এক শহরে সম্প্রতি বিশ্বের পয়লা নম্বর টেনিস তারকা ৪০ হাজার ইউরোরও বেশি অর্থ সাহায্য করলেন। ভারতীয় মুদ্রায় অংকটা প্রায় ৩৫ লক্ষের কাছাকাছি।

নোভি পাজার নামে সার্বিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত এক শহরে তাঁর আর্থিক অনুদান তুলে দিয়েছেন জকোভিচ। করোনার জেরে সার্বিয়ার এই শহরটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ। স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হয়েছে। জানা গিয়েছে জুনের শেষ দিক থেকে শহরটিতে করোনার জেরে আক্রান্তের সংখ্যা এতোটাই হু-হু করে বাড়তে থাকে যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয় সেখানে।

তবে শুধু নোভি পাজারই নয়। মে মাসের শুরুতে দেশে প্রথম কোভিড আক্রান্তের সন্ধান পাওয়ার পর গোটা সার্বিয়াতে এখন প্রাত্যহিক গড়ে ২০০ জন করে কোভিড১৯ আক্রান্তের হদিশ মিলছে। এক মাস আগেও সংখ্যাটা ছিল পঞ্চাশের কাছাকাছি। দেশজুড়ে এমন করোনা আবহের মধ্যেই চ্যাড়িটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করে গত মাসে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন নোভাক জকোভিচ। সার্বিয়ার রাজধানী বেলগ্রেড এবং ক্রোয়েশিয়ার জাদার শহরে জকোভিচ আয়োজিত টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে করোনায় আক্রান্ত হন খোদ জকোভিচ সহ চার টেনিস প্লেয়ার।

এদের মধ্যে রয়েছেন বুলগেরিয়ার গ্রিগর দিমিত্রভ, ক্রোয়েশিয়ার বোর্না করিচ, সার্বিয়ার ভিক্টর ত্রোইস্কি। টুর্নামেন্টে দর্শক প্রবেশে অবাধ অনুমতি প্রদানের পাশাপাশি টুর্নামেন্ট চলাকালীন সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং উপেক্ষা করে প্লেয়ারদের পার্টি করার ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয়ে যায় সমালোচনা। টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলতে জকোভিচ ক্রোয়েশিয়া পৌঁছে গেলেও ফাইনাল আয়োজন করা যায়নি। জাদার থেকে ফিরলে সার্বিয়ান তারকার শরীরে করোনা পরীক্ষা করা হয়। সেখানেই সস্ত্রীক করোনা আক্রান্ত হন ‘জোকার’।

যদিও ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করে জকোভিচ ক্ষমা চেয়ে নেন ১৭টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক। তিনি জানান, জানান, ‘আমি ভীষণভাবে দুঃখিত প্রত্যেকের জন্য। আশা রাখি কারও শারীরীক পরিস্থিতি জটিল পর্যায়ে পৌঁছবে না এবং খুব তাড়াতড়ি সকলে সুস্থ হয়ে উঠবে। আমরা যা করেছি সহৃদয়ে করেছি এবং আমাদের উদ্দেশ্য খুবই পরিষ্কার ছিল। আমাদের টুর্নামেন্ট মানুষকে ঐক্যবদ্ধ ও সংহতিপরায়ণ করার জন্য আয়োজিত হয়েছিল।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ