প্রতীকি ছবি

বেঙ্গালুরু: শুধুমাত্র অনলাইনে অর্ডার নিয়ে খাবার পৌঁছে দেওয়ার পরিষেবায় সীমাবদ্ধ থাকতে চাইছে না স্যুইগি ৷ তাই পরিষেবার পরিধি বাড়াতে তাতেও বৈচিত্র্য আনতে চাইছে এই সংস্থাটি ৷ সেক্ষেত্রে প্রাথমিক ভাবে বেঙ্গালুরুতে যে কোনও কিছুই পৌঁছে দিতে উদ্যোগী হয়েছে এই সংস্থাটি ‘স্যুইগি গো’ নামের পরিষেবার মাধ্যমে ৷ সংস্থার পরিকল্পনায় রয়েছে ২০২০ সালের মধ্যে গোটা দেশের ৩০০টি শহরে এই পরিষেবা চালু করতে৷

এর ফলে বাড়ি বা অফিস থেকে পার্সেল, চিঠি বা অন্য যে কোনও সামগ্রী কোথাও পৌঁছে দেওয়ার জন্য গ্রাহকেরা এই পরিষেবার পাবে। স্যুইগি গো পরিষেবার মাধ্যমে শহরের ভিতরে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পার্সেল, চিঠি, জরুরি কাগজপত্র বা অন্য কোনও সামগ্রী পৌঁছে যাবে। ফলে বাড়ি থেকে অফিসে টিফিন পাঠানো কিংবা লন্ড্রিতে জামা কাপড়ের ব্যবস্থা করে দেবে এই পরিষেবা৷ এজন্য স্যুইগির নিজস্ব ডেলিভারি পার্সন গন্তব্যে জিনিস পৌঁছে দেওয়ার কাজ করবে। এর পাশাপাশি বেঙ্গালুরু এবং হায়দরাবাদে স্যুইগি স্টোরস পরিষেবা শুরুর কথাও ঘোষণা করেছে সংস্থাটি।

স্যুইগির সিইও শ্রীহর্ষ ম্যাজেটি বক্তব্য, শহুরে লোকেদের উন্নত মানের জীবনযাত্রার সুযোগ করে দেওয়াটাই হল স্যুইগির লক্ষ্য। তিনি আরও জানান, দেশের মধ্যে বেঙ্গালুরুতেই প্রথম ব্যবস্থা হচ্ছে যেখানে গ্রাহকরা শুধুমাত্র খাবারই নয়, যে কোনও পণ্য ডেলিভারির সুবিধা পাবে। এই পরিষেবা দিতে ২০২০ সালের মধ্যে ৩০০-র বেশি শহরে স্যুইগি গো পরিষেবার পরিধি বাডা়নো হবে এবং দেশের প্রধান মেট্রো শহরে স্যুইগি স্টোরস পরিষেবা শুরু করা হবে।

এই পরিষেবা দিতে স্যুইগি গো এবং স্টোরস এর যাবতীয় ডেলিভারির কাজ সংস্থার নিজস্ব ডেলিভারি পার্টনার এবং গাড়ির মাধ্যমেই করা হবে। এতে ডেলিভারি পার্টনারদের অতিরিক্ত আয়ের সুয়োগ থাকবে।তাছাড়া স্যুইগির সমস্ত ডেলিভারি পার্টনারদের জীবন বিমা, মেডিক্যাল এবং দুর্ঘটনা বিমার ব্যবস্থা করা হবে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও