কলকাতা: ভাড়া জটে রাস্তায় নামল না অনেক বেসরকারি বাস৷ ফলে ফের শুরু হয়েছে যাত্রী দুর্ভোগ৷

গতকালই জয়েন্ট কাউন্সিল জানিয়েছিল,ভাড়া বৃদ্ধি না হলে তাদের পক্ষে আর পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়৷ জয়েন্ট কাউন্সিলের হাতে রয়েছে ৩ হাজার ৫০০ বাস৷ তবে রাস্তায় নেমেছে বাস মিনিবাস অ্যাসোসিয়েশনের ৫০০ বাস৷ এছাড়া আরও বেশ কিছু সংগঠনের বাস রাস্তায় থাকলেও,যাত্রীর তুলনায় তা ছিল কম৷

জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, আর বাস পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়৷ ভাড়া বৃদ্ধির বিষয় এখনও রেগুলেটরি কমিটি কিছু জানায়নি৷ ফলে সোমবার থেকে আমরা আর পরিষেবা দিতে পারছি না৷ কলকাতাসহ সারা রাজ্যে ওই দিন থেকে জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের কোনও বাস রাস্তায় নামবে না৷ ভাড়া বৃদ্ধি হলেই আমাদের পক্ষে বাস পরিষেবা দেওয়া সম্ভব৷

ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে অনড় আরও ৩টি বাস মালিক সংগঠন৷ ইতিমধ্যেই একটি সংগঠন জানিয়ে দিয়েছে, তাদের বাস চলবে না৷ অন্যান্য সংগঠনের মত, বাস চালাতে বারণও নয়, বাধ্যও করা হবে না। বাস ভাড়া বাড়ালেই মিলবে স্থায়ী সমাধান। দাবি বেঙ্গল বাস সিন্ডিকেট-সহ ৩টি সংগঠনের। কলকাতা ও জেলার ২৭ হাজার বাসকেই দিতে হবে আর্থিক সাহায্য, দাবি বেঙ্গল বাস সিন্ডিকেট-সহ ৩টি সংগঠনের।

ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে আগেই সরব হয়েছে ৮টি বেসরকারি বাস ও মিনিবাস সংগঠন৷ বেসরকারি বাস সংগঠনের প্রতিনিধিরা দেখা করেন সরকার নিযুক্ত রেগুলেটরি কমিটির সাথে৷ ভাড়া না বাড়ালে বাস চালানো সম্ভব হবে না বলে দাবি বেসরকারি বাস সংগঠনের প্রতিনিধিদের৷

সরকারের কাছে তারা যে রিপোর্ট পেশ করেছেন সেখানে উল্লেখ করেছেন, লকডাউনের আগে বাসে যাত্রী হত ৭৫৫ জন। তাদের থেকে টিকিট বিক্রি করে আয় হত ৫,৯৭০ টাকা। এখন সেখানে যাত্রী হচ্ছে ৩০০ জন। টিকিট বিক্রি করে মিলছে ২৩৭০ টাকা। অপরদিকে, মিনিবাসে যাত্রী হত ৪৫৫ জন। তা থেকে টিকিট বিক্রি করে পাওয়া যেত ৪,৩২৫ টাকা। এখন যাত্রী হচ্ছে ২০০ জন। আর টিকিট বিক্রি করে পাওয়া যাচ্ছে ১,৮৮০ টাকা৷

কিছুদিন আগে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়,বেসরকারি বাসের ভাড়া নির্ধারন করবে রেগুলেটরি কমিটি। রাজ্য সরকার এই কমিটি তৈরি করায় বেসরকারি বাস মিনিবাস পরিষেবা শুরু করেছিল মালিকরা৷ কিন্তু এতদিনেও ওই কমিটি ভাড়া না বাড়ানোয়, বেসরকারি বাস পরিষেবা ব্যহত হচ্ছে৷

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I