আবুধাবি: মরুশহরে পৌঁছনোর পর থেকেই ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর মাথাব্যথার কারণ ছিল সেখানকার দাবদাহ। আমিরশাহীর আর্দ্রতার সঙ্গে এখনও যে ক্রিকেটাররা মানিয়ে নিতে পারেনি সেটা বুধবার ম্যাচের পর মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মার কথাতেই স্পষ্ট। তাঁর ৫৪ বলে ঝোড়ো ৮০ রানের ইনিংসকে প্ল্যাটফর্ম করেই এদিন নাইটদের ১৯৬ রানের বিরাট লক্ষ্যমাত্রা ছুঁড়ে দেয় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

কিন্তু আমিরশাহীর আর্দ্রতায় লম্বা ইনিংস খেলা একেবারেই সহজ ব্যাপার নয়, ম্যাচের পর সাফ জানালেন ‘হিটম্যান’। মুম্বই অধিনায়কের কথায় আমিরশাহীর গরম এবং আর্দ্রতা ক্রিকেটারদের এনার্জির দফারফা করে দিচ্ছে। রোহিত জানাচ্ছেন, ‘এখানে লম্বা ইনিংস খেলা মোটেই সহজ ব্যাপার নয়। এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের প্রচুর এনার্জির ঘাটতি হচ্ছে। আমি কিছুটা ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম শেষদিকে এবং এটা ব্যাটসম্যানদের কাছে অবশ্যই শিক্ষনীয়। এখানে শেষ অবধি খেলার জন্য ব্যাটসম্যানদের অতিরিক্ত মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে নামতে হবে।’

এদিন রোহিতের ৫৪ বলে ৮০ রানের ইনিংস সাজানো ছিল ৩টি চার এবং ৬টি ছক্কায়। বড় ইনিংস খেলার পাশাপাশি এদিন আইপিএলের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে ২০০ ছক্কার এলিট ক্লাসে প্রবেশ করেন রোহিত। প্যাট কামিন্সকে হাঁকানো এদিন তাঁর জোড়া সিগ্নেচার পুল শট জানান দেয় লকডাউনে ‘হিটম্যানে’র সহজাত ক্ষমতায় এতোটুকু মরচে ধরেনি। রোহিত নিজেও খুশি তাঁর ব্যাটিং পারফরম্যান্সে। ম্যাচের পর মুম্বই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক জানান, ‘পুল শটগুলো খেলতে পেরে ভীষণ খুশি আমি। কারণ শটগুলো টুর্নামেন্ট শুরুর আগে দারুণভাবে অনুশীলন করেছি আমি। গোটা দলের পারফরম্যান্সেই আমি খুশি। আমি যে শটগুলো খেলেছি প্রত্যেকটাই দারুণ (হেসে)। আলাদা করে বাছাই করা মুশকিল।’

বোলিং আক্রমণ নিয়ে বলতে গিয়ে রোহিত জানান, ‘আমরা কখনোই ভাবিনি যে আমিরশাহীতে আইপিএল হবে। স্বাভাবিকভাবেই ওয়াংখেড়ের কথা মাথায় রেখে আমরা পেস বিভাগ তৈরি করেছিলাম। কিন্তু এখানে দেখছি প্রথম ছয় ওভার বল সিম হচ্ছে ভালোই। একইসঙ্গে ট্রেন্ট বোল্ট এবং প্যাটিনসনের কম্বিনেশনের সঙ্গে আমরা পরিচিত ছিলাম না। তারাও সমানভাবে ভালো পারফর্ম করেছে।’

নাইটদের বিরুদ্ধে এই জয় মুম্বইয়ের কাছে আমিরশাহীতে জয়ের সরণিতে ফেরার মতো। ২০১৪ টানা পাঁচ ম্যাচ হেরে আমিরশাহী অভিযান শেষ করেছিল তারা। এরপর চলতি টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেও সিএসকে’র কাছে হারতে হয়েছিল রোহিতদের। অবশেষে জয়ের সরণিতে ফিরে রোহিত বলছেন, ‘এই জয় আমাদের পরিকল্পনা রূপায়নের ফসল। আমরা যেটা সঠিকভাবে করতে পারেছি।’ উল্লেখ্য, প্রথম ম্যাচে হারের পর বুধবার দ্বিতীয় ম্যাচে নাইটদের ৪৯ রানে হারায় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।