ওয়াশিংটন: পাকিস্তানের কোনও আর্থিক সাহায্য পাওয়া উচিৎ নয়। মঙ্গলবার এমনটাই মন্তব্য করলেন মার্কিন কংগ্রেসের এক প্রতিনিধি। হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা না নেওয়া হলে এক ডলারও দেওয়া উচিৎ নয় বলে জানিয়ে দেন তিনি।

এদিন মার্কিন কংগ্রেসের টেড পো বলেন, ‘অন্যান্য সব জঙ্গি সংগঠনের থেকে এই হাক্কানি নেটওয়ার্কই সবথেকে বেশি আমেরিকানকে মেরেছে আফগানিস্তানে। কিন্তু পাক সরকার এদের বিরুদ্ধে তেমন কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি। তা সত্ত্বেও ৯/১১-র পর থেকে আমেরিকার কাছ থেকে কয়েক বিলিয়ন ডলার অর্ধ সাহায্য নিয়েছে পাকিস্তান।’ তাঁর ,তে পাকিস্তান যতক্ষণ না প্রমাণ দেবে যে তারা হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে, ততক্ষণ কোনও সাহায্য করা উচিৎ নয়।

পো বলেন, পাকিস্তান জঙ্গিদের সমর্থন না করে হাতেনাতে ধরুক। সম্প্রতি, মার্কিন সেনেটে পাস হয় ডিফেন্স বিল। যে বিল অনুযায়ী, ৯০০ মিলিয়ন ডলার ধার্য করা হয়েছে পাকিস্তানকে সামরিক ও বিভিন্ন সাহায্যের জন্য। কিন্তু, সেই আর্থিক সাহায্য দেওয়ার ক্ষেত্রে রয়েছে বেশ কিছু শর্ত। আগে পেন্টাগনকে নিশ্চিত করতে হবে যে আফগানিস্তানে হাক্কানি নেটওয়ার্ক রুখতে সেনা অভিযান চালাচ্ছে পাকিস্তান। তবেই এই সাহায্য দেওয়া হবে।

হাক্কানি নেটওয়ার্ক, আফগানিস্তানের জন্য একটা বড় হুমকি। চলতি বছরে, অন্তত ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পাকিস্তানকে দেওয়া হয়নি কারণ পাকিস্তান হাক্কানি নেটওয়ার্কের উপর চাপ বাড়ায়নি বলে জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব অ্যাস্টন কার্টার। সম্প্রতি হার্ট অফ এশিয়া কনফারেন্সেও জঙ্গিবাদ নিয়ে কোণঠাসা হয় পাকিস্তান। আফগান প্রেসিডেন্ট আশরফ ঘানি সেই সম্মেলনে এসে বলেন, যে পরিমাণ অর্থ আফগানিস্তানের উন্নয়নের জন্য দেওয়ার কথা রয়েছে সেই অর্থ পাক বিদেশমন্ত্রকের উপদেষ্টা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে খরচ করুক৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।