সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় , কলকাতা: জেলায় চলছে শীতের ব্যাটিং। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। কলকাতা বাদে দক্ষিণবঙ্গের অধিকাংশ জেলা এবং জেলা সংলগ্ন গ্রাম , শহরাঞ্চলগুলিতে জাঁকিয়েই রয়েছে শীতের বাজার। আগামী কয়েকদিন তাপমাত্রার বিশেষ হেরফের হবে না বলেই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

দুই থেকে তিন ফেব্রুয়ারি এই ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলির তাপমাত্রার যে বিশেষ হেরফের হয়নি তা বলে দিচ্ছে হাওয়া অফিসের পারদ মাপক যন্ত্রের তথ্য। ২ ফেব্রুয়ারি শনিবার ,আসানসোলের তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ১২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাঁকুড়া , ব্যরাকপুর, বর্ধমানের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যথাক্রমে ১২.২, ১০.৫, ১৩.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কাঁথি এবং ক্যানিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৪, ১০.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কৃষ্ণনগর, পানাগড় , পুরুলিয়া, শ্রীনিকেতনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪.৬, ১০.৪, ১০.৪ এবং ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

তিন ফেব্রুয়ারি রবিবার এই জেলা এবং অঞ্চলগুলির বিশেষ তাপমাত্রার হেরফের হয়নি। হাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী আসানসোলের আসানসোলের তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ৯.৫। অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টার চেয়ে তাপমাত্রা নেমে গিয়েছে প্রায় তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাঁকুড়া , ব্যরাকপুর, বর্ধমানের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যথাক্রমে ১২.৬, ১১.৭, ১৩.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কাঁথি এবং ক্যানিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩.০, ১২.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।২ ফেব্রুয়ারি পানাগড় , পুরুলিয়া, শ্রীনিকেতনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯.৪, ১২.০, ১০.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

ফেব্রুয়ারি মাসের দক্ষিণবঙ্গ মানেই ধীরে ধীরে তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করে এটাই স্বাভাবিক চরিত্র। কিন্তু দক্ষিণবঙ্গের অধিকাংশ জেলাতেই জারি রয়েছে শীতের বহর। তাপমাত্রা এখনও ঘোরাফেরা করছে সর্বনিম্ন ১০ থেকে ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। হাওয়া অফিস জানাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে এখনও তেমনভাবে উত্তুরে হাওয়া বওয়া কমে যায়নি। এর জেরেই ঠাণ্ডার কড়া ভাব জারি থাকছে। বিশেষ করে সকালবেলার দিকে এই কড়া ভাব বিশেষ ভাবে অনুভূত হচ্ছে।

উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও শীতের কড়া অনুভুতি জারি রয়েছে। এদিন কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি এবং কালিম্পংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯.১, ৯.৭, ৮.৬, ৭.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ২৪ ঘণ্টায় কোচবিহার, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি এবং কালিম্পংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮.৬, ৪.০, ৯.১, ৭.৬, ৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। হাওয়া অফিস এও জানাচ্ছে হিমালয়ের উপরে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা সৃষ্টি হবে তবে তা পশ্চিমবঙ্গের উপর প্রভাব ফেলবে না। এর প্রভাব পড়বে ছত্তিশগড়, ওডিশা , মহারাষ্ট্র এবং গুজরাটের উপর।