গুয়াহাটি: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস ঘিরে উত্তপ্ত ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চল। অগ্নিগর্ভ অসমে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে কার্ফু জারি হওয়ার কারণে আরও থমথমে পরিস্থিতি। সেনা টহল চলছে গুয়াহাটির রাজপথে। সরকারি ঘোষণা অনুসারে বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা। সেনা টহলের কারণে অঘোষিত বনধের ছবি গোটা রাজ্য জুড়েই, বিশেষ করে গুয়াহাটি শহরে।

উত্তপ্ত পরিস্থিতির কারণে অসমে স্থগিত ইন্ডিয়ান সুপার লিগের ম্যাচ। বৃহস্পতিবার গুয়াহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেড ও চেন্নাইয়িন এফসি। কিন্তু পরিস্থিতি একেবারেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকায় লিগের ৩৭তম ম্যাচ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিল আইএসএল কর্তৃপক্ষ। এক বিবৃতি মারফৎ জানানো হয়েছে এই কথা। পরবর্তীতে কবে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে, সেব্যাপারে পরবর্তীতে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আইএসএলের তরফ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অনুরাগী, ফুটবলার এবং সাপোর্ট স্টাফেদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।’

কেবল আইএসএল নয়, কার্ফু জারি হওয়ার কারণে বাতিল হয়ে গেল অসম বনাম সার্ভিসেসের মধ্যে রঞ্জি ট্রফির চতুর্থ দিনের ম্যাচ। নাগরিক সংশোধনী বিলের প্রতিবাদের প্রভাব পড়েছে ত্রিপুরাতেও। সেখানেও ত্রিপুরা বনাম ঝাড়খন্ডের মধ্যে মরশুমের প্রথম রঞ্জি ম্যাচের চতুর্থদিনের খেলা। বিসিসিআই’য়ের ক্রিকেট অপারেশন জেনারেল ম্যানেজার সাবা করিম জানিয়েছেন, ‘রাজ্য সংস্থাগুলোর নির্দেশমতোই খেলা চালিয়ে যাওয়ার ঝুঁকি নেওয়া হয়নি। ক্রিকেটার এবং ম্যাচ অফিসিয়ালদের হোটেলের বাইরে বেরোতে নিষেধ করা হয়েছে।’

রাজ্যসভায় নাগরিক সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর থেকেই রাতভর বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি অসমে। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসের প্রতিবাদে ঘেরাও করা হয় মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়ালের বাড়ি। পাশাপাশি কখনও বিজেপি বিধায়ক, সাংসদের তাড়া ও তাঁদের থানায় আশ্রয় নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সবমিলে প্রবল উত্তপ্ত অসম।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আরও থমথমে পরিস্থিতি। সেনা টহলের কারণে অঘোষিত বনধের ছবি গোটা রাজ্য জুড়েই, বিশেষ করে গুয়াহাটি শহরে। সূত্রের খবর, ত্রিপুরা, অসমের পর এবার অরুণাচল প্রদেশেও ইন্টারনেট পরিষেবা সাময়িক স্থগিত করার পথে সরকার। তবে এই বিষয়ে সরকারিভাবে কিছু বলা হয়নি এখনও।