নয়াদিল্লি: জাপানের কাছে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক বোমা পরীক্ষা নিয়ে কড়া বার্তা দিল ভারত৷ পিয়ংইয়ংয়ের এই কার্যকলাপের নিন্দা করে বার্তা প্রকাশ করা হয়েছে নয়াদিল্লির পক্ষ থেকে৷ বলা হয়েছে, বারংবার আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘণ করছে উত্তর কোরিয়া৷ তাদের এই কাজ আন্তর্জাতিক শান্তি ও সৌহার্দ্য বজার রাখার পরিপন্থি বলেও জানিয়েছে ভারত৷

আরও পড়ুন: নেটজালে জড়িয়ে বাংলা দখলের তথ্যচিত্র বিজেপি’র

রবিবারের সকালেই প্রবল কম্পনে কেঁপে গিয়েছে কোরীয় উপদ্বীপ৷ সেই সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু বিস্ফোরণ কর্মসূচি নিয়ে আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ল দুনিয়ার সর্বত্র৷ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের দাবি, ষষ্ঠ পরমাণু বিস্ফোরণের মাত্রা গত পরীক্ষার থেকে ৯.৮ গুণ বেশি৷ যা এক লহমায় উড়িয়ে দিতে পারে হিরোশিমা-নাগাসাকিতে নিক্ষেপ করা পরমাণু বোমাকে৷

আরও পড়ুন: অমিত শাহের সঙ্গে এক মঞ্চে দেখা যেতে পারে মমতা ঘনিষ্ঠ শিল্পপতিদের

এদিকে উত্তর কোরিয়ার ভূখণ্ড থেকে প্রবল কম্পন ছড়িয়ে পড়তেই আশঙ্কিত দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান সহ প্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ৷ জাপান সরকারের দাবি, সাম্প্রতিক সময়ে সবথেকে বড় পরমাণু বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে উত্তর কোরিয়া সরকার৷ অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা বলছে, উত্তর কোরিয়ার ১০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ৫.৬ মাত্রার মাঝারি আকারের কম্পন সৃষ্টি হয়েছে। এই কম্পন ভূম্পিকম্প নাকি অন্য কোনও কারণে সৃষ্ট তা এখনো জানা যায়নি।

আরও পড়ুন: লক্ষ্য লোকসভা: নয়াদিল্লির ভারী মাথা এনে বাংলা দখলের ছক বিজেপির

পিয়ংইয়ং থেকে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে আল-জাজিরা জানিয়েছিল, উত্তর কোরিয়ার ১০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে মাঝারি আকারের কম্পনের কারণে সর্তকতা জারি করা হয়েছে। এই অঞ্চলটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) এবং পরমাণু অস্ত্রের কার্যক্রমে ব্যবহৃত হয়। জানা গিয়েছে, জরুরী অবস্থার মাত্রা ‘লেভেল-২’ নির্ধারণ করে সীমান্তবর্তী অঞ্চল গুলিতে ‘এমার্জেন্সি রেডিয়েশন মনিটারিং’ করতে বলেছে চিনা পরিবেশ মন্ত্রক৷ ফলে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, কিমের এই কাজে যে চিন যথেষ্ট চিন্তিত তাদের এই কার্যক্রম তা প্রমাণ করে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ