বার্লিনঃ  উত্তর কোরিয়া তার পরমাণু অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্রের যন্ত্রাংশ জার্মানি থেকেই সংগ্রহ করেছে! চাঞ্চল্যকর দাবি করল জার্মান গোয়েন্দা সংস্থা বিএফভি। সংস্থার প্রধান হ্যান্স-জর্জ মাসেন এক টিভি সাক্ষাৎকারে এমনটাই চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে। উত্তর কোরিয়ার তরফে এখনও এই বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি।

সাক্ষাৎকারে মাসেন বলেন, বার্লিনে উত্তর কোরিয়ার দূতাবাস ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির জন্য যন্ত্রাংশ সংগ্রহ করেছে। গোপনে এই কাজ করছে। এই ধরনের যন্ত্রাংশ সামরিক এবং সাধারণ উভয় কাজে ব্যবহার করা যায়। আর সেই অজুহাতে বার্লিন থেকে পরমাণু অস্ত্র তৈরির জন্যে ব্যবহৃত যন্ত্রাংশ সংগ্রহ করছে।

বিএফভি’র প্রধান আরও বলেন, জার্মান কর্তৃপক্ষ সাধারণত এই ধরনের কাজ আটকে দেয়। কিন্তু সবসময় তা সম্ভব হয় না বলেও কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন গোয়েন্দা প্রধান। উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির বিরুদ্ধে বহু বছর ধরে দ্বিপক্ষীয় ও বহুজাতিক নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে। এ ছাড়া, গত বছরের আগস্টে উত্তর কোরিয়া একটি হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষা চালানোর পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ পিয়ংইয়ংয়ের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

এরপরও বছরের শেষদিকে উত্তর কোরিয়া একাধিক আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় যেগুলো দিয়ে আমেরিকার যে কোনও স্থানে আঘাত হানা সম্ভব। পিয়ংইয়ং দাবি করছে, এসব ক্ষেপণাস্ত্র পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম। পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র বা পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির লাগাম টেনে ধরা সম্ভব নয়। নিষেধাজ্ঞার ফলে বরং উত্তর কোরিয়ার সাধারণ মানুষ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ