সিওল:  নতুন করে ফের মিসাইল ছুঁড়ল উত্তর কোরিয়া। একটা নয়, দুটি মিসাইলের পরীক্ষা করল পিয়ংইয়ং। সেগুলি উত্তর কোরিয়ার সাগরে পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস্ অব স্টাফ (জেসিএস)। যদিও মিসাইলগুলি স্বল্পপাল্লার বলে জানা গিয়েছে। নতুন করে উত্তর কোরিয়ার একের পর এক মিসাইল পরীক্ষায় আতঙ্ক তৈরি হয়েছে গোটা বিশ্বজুড়ে।

ইতিমধ্যে এই ঘটনার উপর নজর রাখছে আমেরিকা। নতুন করে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে উত্তর কোরিয়ার উপর নজর রাখা হচ্ছে। বিশেষ করে যে পরমাণু ঘাঁটিগুলি ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছিল পিয়ংইয়ং দাবি করেছে সেগুলির উপর বিশেষ নজরদারি চালানো হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ৪৩০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে জাপান সাগরে গিয়ে পড়ে। যদিও তার আগে মিসাইল দুটি ৫০ কিলোমিটার উচ্চতায় উঠেছিল বলে জানা গিয়েছে। আগামী মাস অর্থাৎ অগস্টে দক্ষিণ কোরিয়া ও আমেরিকার সামরিক মহড়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। দুদেশের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ রাষ্ট্রপ্রধান কিম জং উন। সামরিক পর্যবেক্ষকদের মতে, দু’দেশের মধ্যে হতে চলা এই সামরিক মহড়ার বিরুদ্ধে এভাবে মিসাইল ছুঁড়ে নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন কিম।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় ৫টা ৩৪ মিনিটের দিকে প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয় এবং ৫টা ৫৭ মিনিটে দ্বিতীয়টি, জানিয়েছে জেসিএস। উত্তর কোরিয়ার ওয়ানসানের কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ছোঁড়া হয়। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন এই ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ প্রত্যক্ষ করেছেন কি না, তা এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার হয়নি।

জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ক্ষেপণাস্ত্র দুটি জাপানের জলসীমার ভিতরে পড়েনি। ফলে তাদের জাতীয় নিরাপত্তার ওপর কোনো প্রভাবও ফেলেনি। তবে সবরকম সামরিক প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে জাপানের তরফে।