পিয়ংইয়ংঃ   কোরীয় উপসাগরের চলমান উত্তেজনার মধ্যেই আবারও পরমাণু পরীক্ষার হুমকি দিল উত্তর কোরিয়া।   পিয়ংইয়ংয়ের হুমকি, মার্কিন নীতি না বদলালে শীর্ষ নেতার নির্দেশে যে কোনও সময় যে কোনও স্থানে এই হামলা হতে পারে। কয়েক সপ্তাহ ধরে কোরীয় উপদ্বীপে পরমাণু পরীক্ষা নিয়ে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই এহেন হুঁশিয়ারি দিল উত্তর কোরিয়া।  এহেন হুমকি ঘিরে নতুন করে ফের আরও একধাপ উত্তেজনা বাড়িয়ে দিল পিয়ংইয়ং।

উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনও পদক্ষেপের জবাব দিতে উত্তর কোরিয়া পুরোপুরি প্রস্তুত।  ওই মুখপাত্র জানান, ওয়াশিংটন প্রতিকূল নীতি থেকে সরে না আসা পর্যন্ত তারা (উত্তর কোরিয়া) পরমাণু কর্মসূচি থেকে সরে আসবে না।  উত্তর মুখপাত্র আরও বলেন, ধারাবাহিক ও সফলভাবে তারা পরমাণু শক্তির পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে।  শীর্ষ নেতার সিদ্ধান্ত অনুসারে, যে কোনও সময় যে কোনও স্থানে পরমাণু পরীক্ষা চালানো হবে।  শক্তিশালী পরমাণু শক্তি না থাকলে ওয়াশিংটন অন্যান্য দেশের মতোই অনায়াসে উত্তর কোরিয়ার ওপর হামলা চালাত বলেও দাবি এই মুখপাত্রের।

১১ বছরে উত্তর কোরিয়া পাঁচটি পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে, যা সফলতা পেয়েছে।  তবে তাদের ৬ষ্ঠ পরীক্ষা ব্যর্থ হয়েছে।  দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ ও ষষ্ঠ পরমাণু পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার মার্কিন অভিযোগ অস্বীকার করে না উত্তর কোরিয়া।  গত শনিবার পিয়ংইয়ং ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে।  কয়েক সেকেন্ড পরেই এটি বিস্ফোরিত হয়।  তবে এটি ব্যথ হয়েছে বলেই দাবি আমেরিকার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.