স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : দক্ষিণবঙ্গ এখনও পর্যন্ত শুকনো কিন্তু উত্তরবঙ্গে নয় নয় করেই রোজই বৃষ্টি হচ্ছে। একেবারে বৃষ্টি হীন থাকছে না উত্তরের জেলাগুলি। শুক্রবারের মতোই শনিবারের হাওয়ার অফিসের রেকর্ডেও দেখা যাচ্ছে বৃষ্টি অনেক স্থানেই হয়েছে। ব্যাপক পরিমাণে না হলেও তা হচ্ছে।

শনিবার সকাল পর্যন্ত দার্জিলিঙে ১৬.০ মিলিমিটার, জলপাইগুড়িতে ৭.৪ মিলিমিটার, কালিম্পঙে ৭.০ মিলিমিটার, শিলিগুড়িতে ১৮.০ মিলিমিটার ও মালদহে ২.২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত কোচবিহারে ২৫.৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। দার্জিলিঙে ৫.১ মিলিমিটার, জলপাইগুড়িতে ২০.৮ মিলিমিটার, কালিম্পঙে ৭.০ মিলিমিটার, , মালদহে ২৩.৪ মিলিমিটার, শিলিগুড়িতে ১৪.০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার দার্জিলিং-এ ০.৫ মিলিমিটার, মালদহে ১.৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়। জলপাইগুড়িতে বৃষ্টি হয় ২.৯ মিলিমিটার। কালিম্পঙে বৃষ্টির রেকর্ড মেলেনি। বেশি বৃষ্টি হয় শুধু কোচবিহার ও শিলিগুড়িতে। বৃষ্টির পরিমাণ যথাক্রমে ৭৬.৬ ও ৬৬.০ মিলিমিটার।

এর আগে রেকর্ড বৃষ্টি হয় মূলত জলপাইগুড়ি ও উত্তরের বিভিন্ন জনপদে। আলিপুরদুয়ারে প্রায় ২৯২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে ফুঁসছিল উত্তরের সব নদী। জলপাইগুড়ি জেলা সদরেও নদীর জল ঢুকে গিয়েছিল। নদী টইটম্বুর হয়ে যায়। একই রকম বৃষ্টি হয় শিলিগুড়ি শহরেও। কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে সেই শহরের অনেক পথই নদীর চেহারা নিয়েছিল।

এদিকে এতদিন বৃষ্টিহীন ছিল দক্ষিণবঙ্গ কিন্তু এবার রীতিমত সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আগে হলুদ সতর্কতা ছিল। এখন তা কমলা করা হয়েছে। অর্থাৎ ব্যাপক বৃষ্টি আসন্ন তা স্পষ্ট করছে হাওয়া অফিস। কোনও কোনও জেলায় বৃষ্টির তাণ্ডবও দেখা যেতে পারে দক্ষিণবঙ্গে। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপের উপরে। যা রবিবার একটি নিম্নচাপ প্রচণ্ড শক্তিশালী হয়ে বৃষ্টি দেবে দক্ষিণবঙ্গকে।

তবে তার আগে শনিবার পর্যন্ত এই বিশ্রী গরম চলবে। এমনটাই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। এই গরমের পিছনেই লুকিয়ে স্বস্তির আভাস, কারণ সাগরে ঘনাচ্ছে নিম্নচাপ। ফলে শুকনো দক্ষিণবঙ্গে টানা তিন ভারী বৃষ্টি হতে পারে। অস্বস্তিকর গরম। সেই পরিস্থিতি থেকে মিলতে পারে স্বস্তি। সৌজন্যে উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ। এর ঘনীভূত হওয়ার সম্ভাবনা আগেই ছিল। সেদিকেই নজর ছিল আলিপুরের আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের। বৃষ্টির চিত্র স্পষ্ট হতেই পূর্বাভাস দিয়েছেন তাঁরা।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।