স্টাফ রিপোর্টার, শিলিগুড়ি: করোনা ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। অন্যান্য অনেক দেশের মতোই করোনা থাবা বসিয়েছে ভারতে। বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা। চিন্তিত গোটা দেশ। ইতিমধ্যেই করোনা মোকাবিলায় ২০০ কোটি টাকার তহবিল গড়া হয়েছে। ক্রমেই আতঙ্ক বাড়াচ্ছে মারণ করোনা। দেশজুড়ে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এ রাজ্যেও করোনার সংক্রমণ রুখতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য সরকার। ১৫ এপ্রিল স্কুল কলেজ বন্ধ রাখার ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এবার করোনা আতঙ্কের জেরে উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিকদের হস্টেল খালি করার নির্দেশ দিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দিলীপকুমার সরকার বলেন, খালি করা হচ্ছে হস্টেল। অনেক পড়ুয়া আছেন যাদের বহু দূরে। বাড়ি অনেক দূরে হওয়ায় হঠাৎ করে হস্টেল ছাড়তে বললে সমস্যা হবে। তাই আবাসিকদের কথা মাথায় রেখে কয়েক দিন আগামী কয়েক দিন হস্টেল চালানো হবে। তবে শীঘ্রই হস্টেল বন্ধ করার চেষ্টা করা হবে।

জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন-পাঠন অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে আগামী কয়েক দিন। তবে অর্থবর্ষ শেষ হচ্ছে বলে প্রশাসনিক কাজকর্ম চলবে। তাই স্বাভাবিক নিয়মেই প্রশাসনিক দফতর বন্ধ থাকলে অর্থবর্ষের কাজ শেষ করা যাবে না। সে কারণেই প্রশাসনিক দফতর খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান রেজিস্ট্রার ।

সোমবার করোনা নিয়ে নবান্নে বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “অযথা করোনা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। তবে গুজবে কান দেবেন না। আত্মসন্তুষ্টি থাকা ঠিক নয়।” এদিন ইতালি, আমেরিকা-সহ একাধিক দেশের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খতিয়ান পেশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর নির্দেশে আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। একই সঙ্গে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যের সব অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলিও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।