আজকের দিনে ল্যাপটপ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষত করোনা পরবর্তী সময়ে বাড়ি থেকে কাজ করার ক্ষেত্রে সাধারণের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে এই ল্যাপটপ। ক্রেতাদের কথা ভেবে একাধিক ব্র্যান্ড বাজারে নিয়ে এসেছে একের পর এক মডেলের ল্যাপটপ। তবে এবারে জানা গিয়েছে নয়া তথ্য। ল্যাপটপের দুনিয়াতে পা রাখতে চলেছে নোকিয়া।

এর আগে তারা নিয়ে এসেছে একের পর এক ফোন। আর এবারে ল্যাপটপ নিয়ে আকর্ষণ করতে চাইছে ক্রেতাদের।

জানা গিয়েছে, nokia purebook x14 ভারতের বাজারে লঞ্চ করতে চলেছে তাদের প্রথম সিরিজের। জানা গিয়েছে, ফ্লিপকার্টের সাহায্যে তারা ভারতের বাজারে প্রথম নিয়ে আসবে নিজেদের মডেল। মনে করা হচ্ছে, ক্রেতাদের চাহিদার কথা ভেবে নতুন কিছু ফিচার যোগ করা হচ্ছে এই মডেলে। তবে এখনও এই ল্যাপটপের দাম কত হবে তা জানা যায়নি। পাশপাশি ভারতের বাজারে কবে সঠিকভাবে লঞ্চ হবে তা এখনও জানা যায়নি। তবে মনে করা হচ্ছে দ্রুত নতুন বছরের শুরুতেই আসবে এই নতুন ব্র্যান্ড।

জানা গিয়েছে, এতে থাকবে নতুন বেশ কিছু সুবিধা। এতে থাকবে intel core i5 processor। এছাড়াও মনে করা হচ্ছে এতে থাকবে dolby atmos , dolby vision technologies এর সুবিধা। এছাড়া জানানো হয়েছে এতে থাকবে ইউএসবি এবং থাকবে hdmi পোর্টের সুবিধা।

ফ্লিপকার্টে এখনও বিস্তারিত কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি এই ল্যাপটপ সম্পর্কে। তবে মনে করা হচ্ছে যেভাবে ফোনের ক্ষেত্রে উন্নত পরিষেবা দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে দিয়েছিল সেই ভাবেই ল্যাপটপের ক্ষেত্রে পরিষেবা দেবে ফ্লিপকার্ট। পাশপাশি মনে করা হচ্ছে এতে থাকবে অল্প দামে নতুন প্রযুক্তি। ফলে কলেজ পড়ুয়ারা আরও বেশি করে আকর্ষিত হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।