কলকাতা: সারা বিশ্ব তাঁকে চেনে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ হিসেবে৷ তবে সবার আগে যে তিনি একজন বাঙালি, অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন নোবেল হাতে নেওয়ার সময়েই৷ ট্র্যাডিশনাল ধুতি-পাঞ্জাবীতে নোবেল পুরস্কার গ্রহণ যদি তাঁর বাঙালিয়ানার পরিচায়ক হয়, তবে রক্তে ফুটবলপ্রেম আরও একবার বুঝিয়ে দিল কর্মসূত্রে তিনি বিশ্বের যে প্রান্তেই থাকুন না কেন, মন পড়ে থাকে বাংলাতেই৷

আরও পড়ুন: ব্যাট ছেড়ে ক্যামেরা হাতে ইডেনে হাজির প্রাক্তন অজি অধিনায়ক

এমনটা নয় যে বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় শুধু ফুটবল ভালোবাসেন৷ টেনিস খেলা দেখেন নিয়মিত৷ অবসরে টেবিল টেনিস বোর্ডেও সময় কাটান৷ তবে ফুটবলের খেলার প্রসঙ্গ উঠতেই ফুটবলকে ভুলে থাকতে পারেন না তিনি৷

আরও পড়ুন: ইডেন পার্কের গ্যালারিতে একটিমাত্র সবুজ চেয়ারের রহস্য

কলকাতা সাউথ ক্লাব এবার শতবর্ষে পা দিয়েছে৷ শতবার্ষিকী অনুষ্ঠান চলবে সারা বছরব্যাপী৷ নোবেলজয়ী অভিজিৎবাবুকে সংবর্ধনার মাধ্যমেই সেই অনুষ্ঠানসূচির সূচনা হল৷ টেনিসের খাস তালুক সাউথ ক্লাবের সেই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দাঁড়িয়েই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ জানালেন, ৭৫-এর ঐতিহাসিক শিল্ড ফাইনালে ইস্টবেঙ্গলের ৫-০ গোলে মোহনবাগানকে হারানোর সময় তিনি মাঠে উপস্থিত ছিলেন৷

আরও পড়ুন: চপার দুর্ঘটনায় মৃত্যু বাস্কেটবল কিংবদন্তি কোবে ব্রায়ান্টের, শোকবার্তা রোনাল্ডো-বিরাটদের

ফুটবলের পাশাপাশি টেনিস খেলারও ভক্ত অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ফেডেরারের খেলা বিশেষ পছন্দ তাঁর৷ নাদাল, জকোভিচের খেলাও দেখেন৷ বর্তমান প্রজন্মের টেনিস তারকাদের মধ্যে তিনি আলাদা করে নাম নিলেন আলেকজান্ডার জেরেভ ও কারেন খাচানভের৷ ভারতীয় টেনিসের গৌরবোজ্জ্বল অতীতেও ফিরে তাকালেন অভিজিৎবাবু৷ তিনি জানান যে, সত্তরের দশকে সাউথ ক্লাবে বিজয় অমৃতরাজ, জয়দীপ মুখোপাধ্যায়, প্রেমজিৎ লালের খেলা দেখেছেন৷’