ঢাকা: বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল দাবি করেছেন তাদের টাকার কোনও অভাব নেই। টাকা থাকার যে বেঞ্চমার্ক রয়েছে সেই বেঞ্চমার্কের উপরে এখন ৯২ হাজার কোটি টাকা বেশি আছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীতে শেরে বাংলা নগরে মন্ত্রীর কার্যালয়ে বিশ্বব্যাংকের আঞ্চলিক অধিকর্তা জৌবিদা খেরুস আল্লাওয়ার সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রীর দাবি, বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। বিশ্বব্যাংক আরও ভালোভাবে উন্নয়ন কাজে সহায়তা করতে রাজি আছে। তবে সেটা নির্ভর করছে এদেশের ক্ষমতার উপরে। সেজন্য এই ক্ষমতা আরও বাড়ানো হতে পারে।

মুস্তফা কামালের বক্তব্য,সরকারের অর্থের সংকট নেই। তিনি এদিন আরও জানান, কেউ কোথাও কোনও ব্যাংকে গিয়ে টাকা না পেলে, যদি এলসি সেটেলমেন্ট করতে না পারেন এবং পেমেন্ট না করতে পারেন, তাহলে অবিলম্বে তাঁকে জানাতে বলেন৷

অর্থমন্ত্রী ব্যাখ্যা, টাকা তোলার রাস্তাটা হল সেভিংস ইনস্ট্রুমেন্ট বিক্রি করতে হবে, না হলে আমেরিকা যা করে কোয়ান্টিটি বেইজিংয়ের নাম করে টাকা ছাঁপাতে হবে। পুঁজিবাজারে দরপতন প্রসঙ্গে মন্ত্রীর বক্তব্য,এটা উত্তরণে বিশ্বব্যাংক কাজ করছে। বন্ড মার্কেট ও ক্যাপিটাল মার্কেটে কাজ করছে। ব্যাংকিং খাতে যে পরামর্শ দেওয়ার দরকার, তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। এগুলো সংশোধনে কাজ করা হচ্ছে।