নয়াদিল্লি: রবিবার দেশের প্রথম গ্রিন রেল করিডরের উদ্বোধন করল রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু৷ রামেশ্বরম থেকে মাদুরাই পর্যন্ত ১১৪ কিমি দীর্ঘ রেলপথকে বর্জ্য মুক্ত করে এই প্রোজেক্টের কাজ করা হবে জানা গিয়েছে৷ রেলমন্ত্রক সূত্রে খবর, এই রুটে চলাচল করে মোট ২৮৬ টি কোচের প্রায় ১০ টি প্যাসেঞ্জার ট্রেন৷ সেই সমস্ত ট্রেনেই থাকবে বায়ো-টয়লেট৷ ফলে বর্জ্য মুক্ত থাকবে রেল ট্র্যাক৷

rail

রবিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই করিডরের উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী৷ রেলমন্ত্রক সূত্রে খবর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বচ্ছ ভারত অভিযানের অংশ হিসেবেই রামেশ্বরম থেকে মাদুরাই পর্যন্ত ১১৪ কিমি দীর্ঘ রেলপথকে প্রথম গ্রিন রেল করিডর হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল৷ এমনকি ২০১৯ সালের মধ্যে এই প্রোজেক্টের মাধ্যমে ভারতীয় রেলের আরও বেশকিছু রুটে বায়ো-টয়লেট চালু করা হবে বলে জানা গিয়েছে৷ সূত্রের খবর প্রাথমিক ভাবে চলতি বছরের জুনের শেষ পর্যন্ত রেলের ৪০৭৫০ টি কোচে ব্যবস্থা করা হয়েছে বায়ো-টয়লেটের৷ আর রেলের লক্ষ্য এই বছরের শেষ পর্যন্ত ত্রিশ হাজার কোচে বায়ো-টয়লেটের ব্যবস্থা করা৷

রেল মন্ত্রক সূত্রে খবর,পাশাপাশি ১৪১ কিমি দীর্ঘ ওকা-কানালাস রেল জংশন, ৩৪ কিমি দীর্ঘ পোরবন্দর-ওয়্যানজালিয়া ও ৭৮ কিমি দীর্ঘ জম্মু-কাতরা রুটেও বায়ো-টয়লেট চালু করার ভাবনা রয়েছে৷ এই বর্জ্য মুক্ত রেলট্র্যাক গড়ার লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই চুক্তি বদ্ধ হয়েছে ভারতীয় রেল ও কেন্দ্রীয় সামরিক গবেষণা প্রযুক্তি সংস্থা বা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন(ডিআরডিও)৷