নয়াদিল্লি: বেশ কিছু ছাড়ের সুবিধা গ্রহণ করত পারলে সাড়ে নয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত কোনও আয়কর লাগবে না৷ মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল৷ লোকসভায় অর্থ বিল নিয়ে বিতর্কের সময় মন্ত্রী জানান, তিনি আয়কর হারের পরিবর্তন করে কোনও প্রস্তাব রাখেনননি কিন্তু কিছু ছাড়ের ব্যবস্থা করে গিয়েছেন যাতে অর্থনীতি পক্ষে ভাল হবে এবং ব্যয় উজ্জীবিত হবে ৷

অর্থ বিল যাতে এই কর সংক্রান্ত প্র্স্তাব রয়েছে তা লোকসভায় পাশ হয় ধ্বনি ভোটের মাধ্যমে৷ যারফলে সংসদের নিম্নকক্ষে বাজেট সংক্রান্ত প্রক্রিয়ার কাজ শেষ হল৷ এই প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, এই অন্তর্বর্তী বাজেটে মোদী সরকার কোনও এসইউভি-র উপর কর কমায়নি আহের ইউপিএ সরকারের মতো যাতে ধনীদের সুবিধা হয় ৷

এই ২০১৯ অর্থ বিলে মন্ত্রীর প্রস্তাব আসেএত দিন পর্যন্ত আয়কর আইনের ৮৭এ ধারায় যে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত করযোগ্য আয়ে ২,৫০০ টাকা পর্যন্ত ছাড় মিলত সেটাই এবার সংশোধন করে বলা হয় ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত করযোগ্য আয়ে ১২,৫০০ টাকা পর্যন্ত ছাড় মিলবে। সেক্ষেত্রে এতদিন আড়াই লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করমুক্ত থাকায়, ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত করযোগ্য আয়ে ঠিক ১২,৫০০ টাকাই করের বোঝা থাকত। এ বার ঠিক সেই ১২,৫০০ টাকাটাই রিবেট দেওয়া হচ্ছে, কোনও কর দিতে হবে না বলে। সরকারের হিসেব অনুসারে এই সুবিধা পাবে প্রায় ৩ কোটি করদাতা৷ অন্যদিকে রাজস্বের লোকসান হবে ১৮,৫০০ কোটি টাকা। এই বিলে স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন ৪০,০০০টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০,০০০টাকা করা হয়েছে৷

নির্বাচনের পর পরবর্তী সরকার গড়বে এবং জুলাই মাসে পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করতে নতুন সরকার৷ তবে নতুন সরকারকে এই ২০১৯-২০ অর্থ বিল-এ থাকা প্রস্তাবগুলিকে নিতে হবে৷ মন্ত্রীর বক্তব্য, যদি কংগ্রেস এবং অন্যান্য বিরোধীরা বর্তমান সরকারের দেওয়া মধ্যবিত্তকে দেওয়া করের সুবিধার বিরোধী হয় তবে যেন তারা তাদের নির্বাচনী ইস্তেহারে বলে দেয় ক্ষমতায় এলে ওই সুবিধা তুলে নেবে৷
মন্ত্রী বলেন ঠিক মতো ছাড়ের সুবিধাগুলি নিতে পারলে হিসেব করে দেখা গিয়েছে একজন আয় ৯ থেকে ৯.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হলেও তাতে কর লাগবে না৷