নয়াদিল্লি: ইদ উপলক্ষ্যে কোনও মিষ্টি বিতরণ হল না আট্টারি সীমান্তে৷ জানা গিয়েছে, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের অবনতিতে বর্ডার সিকিওরিটি ফোর্স এবং পাকিস্তানি রেঞ্জার্সের মধ্যে শনিবার মিষ্টি আদান প্রদান হয়নি সীমান্তে৷

প্রসঙ্গত, দিওয়ালি, ইদ এমনই কিছু বিশেষ অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে ওয়াঘা-আট্টারি সীমান্তে মিষ্টি আদান-প্রদানের প্রথা বহু বছর ধরে চলে আসছে৷ পাকিস্তান সেই প্রথা মেনে মিষ্টি আদান-প্রদানে ইচ্ছুক হলেও, চুক্তি উপেক্ষা করে, বারবার নিষেধ সত্ত্বেও পাক সেনার যুদ্ধবিরতি চুক্তিলঙ্ঘনে এই প্রথা থেকে এই ইদে সরে এসেছে ভারতীয় জওয়ানরা৷

উপত্যকার সাম্বা এলাকায় চার বিএসএফ জওয়ান শহিদ হওয়ার পর দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও তলানিতে এসে ঠেকেছে৷

উল্লেখ্য, ইদের দিনেই উপত্যকায় নৌসেরা ব্লকে পাক গুলিতে শহিদ হন এক ভারতীয় সেনা৷ তাঁর নাম বিকাশ গুরুং৷ লাইন অব কন্ট্রোলে ভারতীয় পোস্ট লক্ষ্য করে মর্টার শেলিং ছোঁড়ে পাকিস্তান৷ অন্যদিকে আরনিয়া সেক্টরে যুদ্ধবিরতি চুক্তিলঙ্ঘন করে পাক সেনা৷ প্রত্যুত্তর দেয় ভারতীয় জওয়ানরা৷

এদিকে, বর্ডার সিকিওরিটি ফোর্সের হাতে ধরা পড়ে দুই পাক নাগরিক৷ শনিবার জম্মু-কাশ্মীরের সাম্বা সেক্টরে ধরা পড়ে দুজন৷ সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর খবর অনুযায়ী, ওই দুজনের বয়স ২১ এবং ৩১৷