নয়াদিল্লি: ২০২২ কমনওয়েলথ গেমস থেকে ছুটি হয়ে যেতে চলেছে শুটিং৷ পরিবর্তে ঢুকতে চলেছে মহিলাদের টি-২০ ক্রিকেট, বিচ ভলিবল এবং প্যরা টেবল টেনিস৷ বৃহস্পতিবার কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশনের একজিকিউটিভ বোর্ডের বৈঠকে এমনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

২০২২ কমনওয়েলথ গেমসের আসর বসতে চলেছে ইংল্যান্ডের বার্মিংহ্যাম শহরে৷ কিন্তু শটিং না-থাকলেও নিঃসন্দেহে পদক সংখ্যা কমবে ভারতের৷ কারণ ২০১৮ গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমেস থেকে শুটিংয়ে ১৬টি পদক জিতেছিল ভারত৷ যার মধ্যে ছিল সাতটি সোনা৷ শুটিং ছাড়াও বার্মিহ্যাম কমনওয়েলথ থেকেই ছুটি হয়ে যেতে পারে আর্চারি স্পোর্টসেরও৷

মহিলাদের টি-২০ ক্রিকেট, বিচ ভলিবল ও প্যারা টেবল টেনিস নিয়ে আগামী মাসের কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশনের একজিকিউটিভ বোর্ডের বৈঠকে এই তিন স্পোর্টস নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷ বার্মিংহ্যাম কমনওয়েলথ গেমসের সিইও ইয়ান রেড জানান, ‘মহিলা ক্রিকেট, বিচ ভলিবল ও প্যারা টেবল টেনিস নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷ আমাদের বিশ্বাস এই স্পোর্টস গুলোকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে৷ এর ফরে নতুন দর্শক, সারা বিশ্বে টেভিলিশন সমর্থকদের সংখ্যা বাড়াতে সাহায্য করবে৷’

তিনি আরও বলেন, ‘এই নির্বাচন ২০২২ কমনওয়েলথ গেমস ইতিহাস সৃষ্টি করবে৷ সেক্ষেত্র এটা হবে বিশ্বের সেরা প্যার স্পোর্টস প্রোগ্র্যাম৷ যাতে বেশি সংখ্যক মহিলা অ্যাথলিট অংশ গ্রহণ করবে৷’ গত বছর ন্যাশানাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়ার (এনআরএআই) প্রেসিডেন্ট রানিন্দার সিং চেয়েছিলেন, শুটিংকে বাদ দেওয়া হলে ভারত ২০২২ কমনওয়েলথ গেমস বয়কট করুক৷’ বার্মিংহ্যাম কমনওয়েলথ গেমস থেকে শুটিং বাদ চলে গেলে পদক তালিকায় ভারত অনেক নিচের দিকে থাকবে৷

কারণ গত কমনওয়েলথ গেমসে ভারতের ১৬টি পদকই এসেছিল শুটিং থেকে৷ এর মধ্যে সাতটি সোনা, চারটি রুপো এবং ৫টি ব্রোঞ্চ৷ শুধুমাত্র ১৯৭০ এডিনবার্গ কমনওয়েলথ বাদ দিলে ১৯৬৬ কমনওয়েলথ শুরু থেকেই শুটিংয়ে ভারত ধারাবাহিকভাবে অনেক পদক নিয়ে আসছে৷