ঢাকা: ভারতীয় ক্রিকেট জুয়াড়ি বিক্রম আগরওয়ালের সঙ্গে ম্যাচ-ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন। কিন্তু সেই তথ্য গোপন করায় আইসিসি এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার শাকিব আল হাসানকে৷

আইসিসির এই সিদ্ধান্তের জেরে চলতি ভারত সফরে নেই শাকিব। প্রথমে দু’বছর নিষিদ্ধ করা হলেও পরে তার মেয়াদ এক বছর কমানো হয়। কিন্তু শাকিবের নির্বাসন নিয়ে বাংলাদেশে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। শাকিবের নিজের জেলা মাগুরায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন ক্রিকেটপ্রেমীরা।
মাগুরা সরকারি মডেল স্কুলের পড়ুয়ারা বিদ্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। ‌‘নো শাকিব, নো ক্রিকেট’ বলে স্লোগান দেয় তারা।

ঠিক একইভাবে ১৯৪৫-এ ইডেনে অস্ট্রেলিয়া সার্ভিসের বিরুদ্ধে বেসরকারি টেস্টে ভারতীয় দলে মুস্তাক আলি জায়গা না-পাওয়ায় ‘নো মুস্তাক, নো টেস্ট’ স্লোগানে মুখরিত হয়েছিল কলকাতা৷ তৎকালীন জাতীয় নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান দলীপ সিংজির সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা৷ শেষ পর্যন্ত দলে নেওয়া হয়েছিল মুস্তাককে৷ সুযোগ পেয়ে ওই ম্যাচে ৩১ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন বাঁ-হাতি স্পিনার৷

সম্প্রতি শাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররা বেতন-পারিশ্রমিক বৃদ্ধি সহ ১১ দফা দাবিতে ধর্মঘট করেন।এই ক্রিকেট ধর্মঘটের জেরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটমহলে আলোড়ন ছড়ায়। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ক্রিকেটারদের দাবি নেমে নেয়৷ বিসিবি-র সঙ্গে শাকিবদের লড়াইয়ে ভারত সফর নিয়ে প্রথমে অনিশ্চিত দেখা দিলেও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করেন।

কিন্তু এর পরই শাকিবের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসে৷ ক্রিকেট জুয়াতে জড়িত থাকার তদন্ত রিপোর্ট ধরে বাংলাদেশ অধিনায়ককে নির্বাসিত করে আইসিসি৷ ভারত সফরের ঠিক আগে ক্রিকেট ধর্মঘট ও শাকিবের ম্যাচ-ফিক্সিং কাণ্ডে বাংলাদেশের ক্রিকেটমহল আলোড়িত হয়।

বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসার পরই ঘরের মাঠে প্রথম ডে-নাইট টেস্টের সিদ্ধান্ত নেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷ ২২ নভেম্বর ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচটি হবে ভারতের মাটিতে প্রথম দিন-রাতের ম্যাচ৷

ইডেনে দিন-রাতের এই টেস্টে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবে ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ এই তিন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের হাতেই ভারতের মাটিতে প্রথম দিন-রাতের টেস্টের উদ্বোধন হতে পারে৷ সব ঠিকঠাক থাকলে ইডেন বেল বাজিয়ে মমতা-মোদি ও হাসিনা ইডেন টেস্টের সূচনা করবেন৷