নিউ ইয়র্ক: কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে সম্পর্কে খারাপ হয়েছে পাকিস্তানের। আন্তর্জাতিক স্তরে বারবার ধাক্কা খেয়েও হাল ছাড়েনি ইসলামাবাদ। রাষ্ট্রসংঘ থেকে আমেরিকা সকলের হস্তক্ষেপ চাইলেও সেই প্রচেষ্টা ফলপ্রসূ হয়নি। কোন লাভ হয়নি। এবার ভারতের প্রতি হতাশা উগড়ে দিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। জানিয়েছেন ভারতের সঙ্গে কথোপকথনে পাকিস্তান আর আগ্রহী নয়।

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে পাক প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেণ্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনে কথা হওয়ার পরের দিন তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন পাকিস্তান বারবার আলোচনায় বসার কথা জানালেও ভারত তাতে কোন গুরুত্ব দেয়নি। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের আগে ও পরে পরিস্থিতির কোন পরিবর্তন হয়নি, এমনটাই জানিয়েছেন ইমরান খান।

তিনি নিউ ইয়র্ক টাইমস-কে দেওয়া এই সাক্ষাতকারে বলেছেন, “ভারতের সঙ্গে আর কোন কথা বলে লাভ নেই। শান্তি রক্ষার্থে ও কথোপকথনের জন্য আমি যে সব পদক্ষেপ নিয়েছি, মনে হয় সেইগুলিকে তাঁরা তোষণের চোখে দেখেছেন। এর চেয়ে বেশি কিছু আমাদের করার নেই।”

ভারতের সঙ্গে কথা বলা অপ্রাসঙ্গিক, এই প্রসঙ্গে আরও বলেছেন যে, পরমানু সহ প্রতিবেশীদের মধ্যে যে হারে উত্তেজনা ও চাপ বাড়ছে তা চিন্তার। নিউ দিল্লিকে দেওয়া জবাবে তিনি জানিয়েছিলেন কাশ্মীরের স্পেশাল স্ট্যাটাস মুছে দেওয়ার জন্য পাকিস্তান আন্তর্জাতিক আদালতে যাবে।

তবে বেশিরভাগ দেশই একমত হয় যে, জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার, এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করার বিষয়টি নয়াদিল্লি ও ইসলামাবাদের দ্বিপাক্ষিক বিষয়। রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলের ১৫টি দেশের বৈঠক হয়। যদিও তাতে ভারত এগিয়ে যায়।