ম্যাঞ্চেস্টার: বাবর আজম যে উচ্চমার্গের ব্যাটসম্যান তাতে আরও বেশি করে তাঁকে নিয়ে আলোচনা হওয়া উচিৎ। কিন্তু যেহেতু সে বিরাট কোহলি নয়, তাই তাঁকে নিয়ে বেশি কথা হয় না। জানালেন নাসের হুসেন। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান প্রথমদিন বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিন বল গড়িয়েছে মাত্র ৪৯ ওভার। প্রথমদিন জোড়া উইকেট হারাতে হলেও ফর্মে থাকা স্টুয়ার্ট ব্রড-ক্রিস ওকসদের সামনে ভালোই শুরু করেছে পাকিস্তান। ১৩৯ রান তুলে প্রথমদিনের খেলা শেষ করেছে সফরকারী দল।

তবে প্রথমদিনের শেষে চর্চার শিরোনামে এই মুহূর্তে সবধরনের ফর্ম্যাটে পাকিস্তানের সেরা ব্যাটসম্যান বাবর আজম। কেন যে তাঁকে বিরাট কোহলির সঙ্গে তুলনায় জড়িয়ে ফেলেন বিশেষজ্ঞরা, বুধবার ফের একবার জানান দিলেন বাবর। ১০০ বল খেলে দিনের শেষে বাবর অপরাজিত ৬৯ রানে। এখনও অবধি যে ১১টি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন, সবক’টিতেই নিজের ব্যাটিং উৎকর্ষতার ছাপ রেখেছেন বাবর। বৃহস্পতিবার আর ৩১ রান করতে পারলে টেস্ট ক্রিকেটে ষষ্ঠ শতরানটি পূর্ণ করবেন পাকিস্তানের ওয়ান-ডে দলনায়ক। যার মধ্যে শেষ পাঁচটি টেস্ট ইনিংসে এটি হবে তাঁর চতুর্থ শতরান।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে প্রথমদিনের ম্যাচ শেষে বাবরে মুগ্ধ প্রাক্তন ইংরেজ অধিনায়ক নাসের হুসেন অবিলম্বে তাঁকে ‘ফ্যাব ফাইভে’ অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছেন। নাসের বলেন, বর্তমান বিশ্ব ক্রিকেটে যে ফেভারিট চার ব্যাটসম্যানের (বিরাট কোহলি, স্টিভ স্মিথ, কেন উইলিয়ামসন, জো রুট) তালিকা আছে সেই তালিকা বর্ধিত করে ‘ফ্যাভ ফাইভ’ করা হোক এবং তাতে অবশ্যই বাবর আজমের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হোক। নাসের আরও বলেন, ‘এটা যদি বিরাট কোহলি হত তাহলে সবাই আলোচনা করত। কিন্তু এটা যেহেতু বাবর আজম তাই কেউ উচ্চবাচ্য করছে না।

কিন্তু বিশ্বাস করুন ইয়ং ছেলেটি ক্রিকেটের একজন উৎকর্ষ ব্যাটসম্যান। ওর ব্যাটিংয়ে প্রয়োজনীয় সমস্ত দাম্ভিকতা মজুত রয়েছে। অবিলম্বে বাবর আজমকে ‘ফ্যাভ ফাইভে’ তালিকাভুক্ত করা হোক।’ উল্লেখ্য, করোনা আবহে বুধবার ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজ খেলতে নেমেছে পাকিস্তান। ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর এটি করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে দ্বিতীয় টেস্ট সিরিজ। সিরিজের প্রথম দিনেই নজির গড়ে ফেলেছেন পাক ব্যাটসম্যান বাবর আজম। টানা পাঁচ ইনিংসে পঞ্চাশোর্ধ্বে স্কোর করে বুধবার কিংবদন্তি জহির আব্বাস, ইনজামাম উল হককে ছুঁয়ে ফেলেন প্রতিশ্রুতিমান এই ব্যাটসম্যান।

বাবর হলেন বিশ্বের একমাত্র ব্যাটসম্যান, যার আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ১০০ বেশি গড় রয়েছে। ২০১৮ সালে শুরু হওয়া ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে প্রতিশ্রুতিময় পাক ব্যাটসম্যান ৫টি ম্যাচে চারটি সেঞ্চুরি-সহ ৬১৫ রান করেছেন, গড় ১০২.৫০। এই মুহূর্তে বিশ্বের আর কোনও ব্যাটসম্যান ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এত বেশি গড় নেই।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা