পাটনা : সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্যে পরপর মোড়। বেশ কয়েকদিন আগেই সিবিআি তদন্তের দাবি উঠেছে অভিনেতার মৃত্যু রহস্যের কিনারা করতে। এবার সেই পক্ষেই রায় দিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার। এদিন সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন তিনি বলেন যদি সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিবার চায় সিবিআই তদন্ত, তবে তাতে আপত্তি নেই। সিবিআইয়ের হাতে গোটা মামলা তুলে দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রী এদিন জানান সুশান্তের বাবা যে এফআইআর করেছেন, তার প্রেক্ষিতে বিহার পুলিশ মামলা শুরু করেছে। এটা তাঁদের দায়িত্ব।

এর আগে, বিহারের জলসম্পদমন্ত্রী সঞ্জয় কুমার ঝা বলেন সুশান্তের মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে বলেছিলেন নীতিশ কুমারকে এই বিষয়ে অবশ্যই পদক্ষেপ করা উচিত। এই ব্যাপারে নীরবতা ভাঙুন মুখ্যমন্ত্রী। তারপরই বক্তব্য রাখেন নীতিশ। জানান সিবিআই তদন্তে তাঁর আপত্তি নেই, যদি সুশান্তের পরিবারের লোকজন চান। তিনি বলেন, বিহার সরকার সুশান্তকে ন্যায় বিচার দিতে বদ্ধপরিকর। সেজন্য প্রয়োজনীয় সবরকম ব্যবস্থা তাঁরা নেবেন।

সুশান্তের বাবা কেকে সিং রাজীব নগর পুলিশ স্টেশনে সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ২৫শে জুলাই এফআইআর দায়ের করেন। তিনি অভিযোগ করেছিলেন যেই মুহূর্তে রিয়া দেখেন সুশান্ত আর কোনও কাজে লাগছে না। তাঁর ব্যাংক ব্যালেন্স ও কমে গিয়েছে সেই মুহূর্তে তিনি সমস্ত ডকুমেন্টস টাকা গয়না ক্রেডিট কার্ড নিয়ে সেই বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যান। সেই দিনটা ছিল ৮ জুন।

এমনকি সুশান্তের ফোন নম্বর নিজের ফোনে ব্লক করে দেন। এছাড়াও সুশান্তের বাবার দাবি ছিল রিয়া নাকি ছবির পরিচালকদের স্পষ্ট বলতেন সুশান্ত তবেই অভিনয় করবেন যদি প্রধান অভিনেত্রীর চরিত্রে তাঁকে কাজ দেওয়া হয়। আর সেই জন্যই একাধিক ছবি প্রত্যাখ্যান করতে বাধ্য হতেন সুশান্ত। কে কে সিং জানিয়েছেন তাঁর ছেলে তাঁকে একবার বলেছিলেন, রিয়া ও তার পরিবার তাকে মানসিক হাসপাতালে পাঠানোর প্রাণপণ চেষ্টা করছে। এই সবের প্রেক্ষিতেই এফআইআর দায়ের করা হয়। বিহার সরকার ইতিমধ্যেই এই এফআইআরের বিরুদ্ধে রিয়ার আনা অযৌক্তিকতার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। বিহার সরকারের সাফ দাবি বিহার পুলিশ অবশ্যই রিয়ার বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারে।

৫ই অগাষ্ট সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার শুনানি। শুক্রবার অর্থাৎ ৩১শে জুলাই মুজফফরপুরের বিজেপি সাংসদ অজয় নিশাদ সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে চিঠি দেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ