নয়াদিল্লি: দুর্গাপুজোয় ইনকাম ট্যাক্স নোটিশ দেওয়া হয়েছে ধর্ণায় বসেছে তৃণমূল। আর তৃণমূলের সেই দাবি উড়িয়ে দিল সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্স। মঙ্গলবার কর দফতরের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে গত কয়েক সপ্তাহে দুর্গা পূজা কমিটি ফোরামকে কোনও ইনকাম ট্যাক্স নোটিশ দেওয়া হয়নি।

মঙ্গলবার থেকেই ইনকাম ট্যাক্স নোটিশের বিরোধিতা করে ধর্ণায় বসেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও এই দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু, কর দফতর সেই দাবি সম্পূর্ণ অস্বীকার করছে।

এদিন দফতরের তরফ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টে বলা হচ্ছে যে কলকাতার দুর্গা পূজা কমিটিগুলিকে ইনকাম ট্যাক্স নোটিশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই রিপোর্ট সম্পূর্ণ ভুল। এটাই সত্যি যে, দুর্গা পূজা কমিটি ফোরামে এবছর কোনও নোটিশ দেওয়া হয়নি।

মঙ্গলবার সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে সকাল ১০টা থেকে অবস্থানে বসেছে তারা৷ গত রবিবারই এই কর্মসূচীর কথা ফেসবুকে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

আয়কর দফতরের তরফে পুজো কমিটিগুলিকে নোটিশ ধরানোর ঘটনার প্রথম দিন থেকেই গর্জে উঠেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছিলেন, দুর্গাপুজো জাতীয় উৎসব। তার জন্য তিনি গর্বিত। অথচ পুজো কমিটির উপর আয়করের নামে আর্থিক বোঝা চাপানো হচ্ছে। ক্ষমতায় বসেই তাঁর সরকার গঙ্গাসাগর মেলার তীর্থযাত্রীদের উপর বসানো কর তুলে দিয়েছে।

ক্ষুব্ধ মমতা সোশ্যাল মিডিয়ায় সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, দুর্গাপুজোয় কোনও কর নেওয়া যাবে না৷ এর বিরুদ্ধেই দলের শাখা সংগঠনকে আন্দোলনে সামিল হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন মমতা। চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, শশী পাঁজা এমনকি কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমও সামিল হয়েছেন সেই ধর্ণায়।

এই প্রসঙ্গে, কাশিবোস লেন দুর্গাপুজো কমিটির উদ্যোক্তা সৌমেন দত্ত বলেন, ”গত বছর ডিসেম্বর মাসে নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। তার জবাব জানুয়ারিতেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারপর আর কোনও নোটিশ পাইনি।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ