নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাস নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। ভারত করোনা মোকাবিলায় পুরোপুরিভাবে তৈরি রয়েছে, সংসদে বিবৃতি দিয়ে জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন বলেও এদিন জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার করোনা ভাইরাস নিয়ে সংসদে বিবৃতি পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ভারতে এখনও পর্যন্ত ২৯ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস মিলেছে। ১৩ ভারতীয়র শরীরে মিলেছে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি। একইসঙ্গে ১৬ ইতালিয়র শরীরেও করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। ইতালি থেকে আসা ১৬ জনের শরীরে মিলেছে ওই মারণ ভাইরাস।

বৃহস্পতিবার সংসদে করোনা ভাইরাস নিয়ে বিবৃতি দিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে অযথা ভারতীয়দের আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। করোনা মোকাবিলা ভারত পুরোপুরিভাবে তৈরি রয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এদিন বিবৃতি দিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও জানান, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে করোনা পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছেন। তিনি এব্যাপারে প্রয়োজনীয় মনিটরিং করছেন। তবে এখনই করোনা ভাইরাস কবলিত দেশগুলিতে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। খুব প্রয়োজন না পড়লে আপাতত বিদেশ সফর স্থগিত রাখতে আবেদন করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এদিকে, করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় একাধিক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে ভারতে। ইতিমধ্যেই ভারতের বিভিন্ন শহরে করোনার চিকিৎসার জন্য অনেকগুলি সেন্টার খোলা হয়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালেও আইসোলেশন ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

যেহেতু করোনা ভাইরাসটি মূলত বিদেশ থেকেই এদেশে ঢোকার সম্ভাবনা রয়েছে, তাই এখনই করোনা আক্রান্ত দেশগুলিতে না গেলে বা সেখান থেকে নতুন করে কেউ দেশে না এলে ভারতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা কম বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে সবসময়ই সাবধানতা অবলম্বন করে চলার পরামর্শ দিয়েছে হু।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।