নয়াদিল্লি:কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে সুদূর দুবাইতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে একটি বৈঠক হয়েছে এই খবর নিয়ে শোরগোল পড়েছিল গোটা দেশে। জানা গিয়েছিল কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে ভারত ও পাকিস্তানের তাবড় আমলাদের মধ্যে গোপনে বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে।আর এই বৈঠকে দুই দেশের কয়েকজন তাবড় গোয়েন্দারাও উপস্থিত ছিলেন বলে খবর।সবাই ভাবতে শুরু করেছিল দুই দেশের মধ্যে সংঘাতের আবহ বোধ হয় কাটতে শুরু করেছে। দুই দেশের সম্পর্ক ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে।এবার সেই জল্পনা উড়িয়ে দিল ভারত, পাকিস্তান উভয় দেশই।

তিনদিনের সফরে শনিবারই সংযুক্ত আরব আমিরশাহী যান পাকিস্তানি বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। সেই সফর শুরু হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই ভারতের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি টুইট করে জানিয়ে দেন যে ১৮ এপ্রিল আবুধাবি যাচ্ছেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর বিদেশমন্ত্রী আবদুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের আমন্ত্রণে সেদেশ যাচ্ছেন জয়শঙ্কর। পাকিস্তানি বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির সঙ্গে কোনো বৈঠকের সময়সূচি নির্ধারিত হয়নি।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে যাচ্ছেন সম্পূর্ণ দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নিতে। সেখানে মূলত দুই দেশের অর্থনীতি, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার হবে বলে জানা গিয়েছে। ভারতের বিদেশমন্ত্রী শুধুমাত্র সংযুক্ত আরব আমিরাতের মন্ত্রীদের সঙ্গেই দেখা করবেন। আর কোনো দেশের মন্ত্রীদের সঙ্গে তাঁর বৈঠকের কোনও সম্ভাবনা নেই।অপরদিকে ইসলামাবাদের তরফেও ভারত-পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রীদের বৈঠকের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ বালাকোট হামলার পর থেকে পরিস্থিতি ক্রমেই দুই দেশের মধ্যে ক্রমেই খারাপ হতে থাকে।কয়েকদিন আগেই আমিরশাহীর এক শীর্ষ কূটনৈতিক স্বীকার করেছিলেন যে, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শান্তি ফেরানোর লক্ষ্যে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহী। সেই কারণেই এই সফর ঘিরে জল্পনা শুরু হয়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.