নয়াদিল্লি: ইতিমধ্যেই খবর রটেছে আয় বাড়াতে সরকার পণ্য পরিষেবা করা ( জিএসটি) বাড়াতে চলেছে ৷ কিন্তু সে কথা একেবারেই উড়িয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ কারণ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন, কর বাড়ানোর ব্যাপারে পণ্য পরিষেবা পর্ষদ বা রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের কোনও রকম কথাই হয়নি। সোমবার টাইমস নেটওয়ার্ক আয়োজিত ইন্ডিয়া ইকনমিক কনক্লেভে তিনি বলেছেন, জিএসটি আদায় কেমন করে বাড়ানো যায় তা নিয়ে রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনা চলছে। অনেক রাজ্যই জিএসটি আদায় বাড়ানোর ব্যাপারে ইতিমধ্যেই পদক্ষেপ করেছে ৷ তাঁর আশা আগামী দিনে এই আদায়ের পরিমাণ বাড়বে।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবারও এক সাংবাদিক বৈঠকে সীতারামন একই রকম বার্তা দিয়েছিলেন। সেদিনও তাঁর বক্তব্য ছিল, জিএসটি বাড়ানো নিয়ে গুঞ্জন শুধু তাঁর অফিসই নেই, বাকি সর্বত্র তা ছড়িয়েছে। তবে তিনি সেদিনও জানিয়েছিলেন, জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে এ নিয়ে তাদের মধ্যে কোনও রকম আলোচনাই হয়নি।

তবে জিএসটি আদায় কমে যাওয়ায় রাজ্যগুলি শর্ত অনুসারে ক্ষতিপূরণ চেয়েছে ৷ এমনকি এই ক্ষতি পূরণের টাকা দিতে কেন্দ্র দেরি করায় পশ্চিমবঙ্গ সহ বেশ কয়েকটি দেশ জিএসটি আদায় এ বছর কম হওয়ায় রাজ্যগুলির ক্ষতিপূরণ প্রাপ্যও গত অগস্ট থেকে মেটায়নি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। জিএসটি ক্ষতিপূরণের টাকা দিতে কেন্দ্রীয় সরকার দেরি করায় পশ্চিমবঙ্গ সহ কয়েকটি রাজ্য কেন্দ্রের কাছে কড়া সুরে অভিযোগ জানিয়েছে। অর্থনীতির মন্দার জন্য এ বছর জিএসটি আদায় কম হওয়ায় রীতিমতো আর্থিক সঙ্কটের মুখে পড়ছে রাজ্যগুলি।

তবে ১৮ ডিসেম্বর পরবর্তী জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে রাজ্যগুলির ক্ষোভ আরও বাড়তে পারে আঁচ করে সোমবারই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক বকেয়া জিএসটি ক্ষতিপূরণ বাবদ রাজ্যগুলিকে ৩৫,২৯৮ কোটি টাকা মঞ্জুর করে।