ইম্ফল: ১৬ বছর পর অনশন ভেঙে মুখে খাবার মুখে তুলেছেন মনিপুরের আয়রন লেডি ইরম শর্মিলা চানু৷ কিন্তু এই বিষয়টি ‘হজম’ করতে পারেনি মনিপুর৷ অহিংস অনশন আন্দোলন ছেড়ে তাঁর রাজনীতিতে আসার সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেনি মনিপুরবাসী৷ মেয়ের এই ‘পরাজয়’ মানতে পারেননি তাঁর মা-ও৷ পরাজিত মেয়ের জন্য তাই ঘরের দরজা বন্ধ করেছেন তিনি৷ দরজা বন্ধ করেছে আম জনতা৷

যে হাসপাতালে গত ১৬ বছর বন্দি ছিলেন চানু, সেখান থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে এক বন্ধুর বাড়িতে আশ্রয়ের খোঁজে গিয়েছিলেন লৌহ মানবী৷ কিন্তু তাঁর পথ আটকায় স্থানীয় মানুষ৷ মাথা গোঁজার জায়গা পেতে ফিরে আসেন সেই হাসপাতালে৷ বুধবার রাতে তাঁর দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় ইন্ডিয়ান রেড ক্রস৷ বিকল্প বাসস্থান না পাওয়া পর্যন্ত মনিপুরের রেড ক্রসই হবে চানুর ঠিকানা৷ ইন্ডিয়ান রেডক্রস সোসাইটির সেক্রেটারি ডঃ ওয়াই মোহন সিং বলেন, ‘‘আমি যখন শুনি শর্মিলার কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই, আমার খুন খারাপ লাগে৷ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করি আমরা৷ নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে আমরা চিন্তিত ছিলাম৷ পরে মানবতার খাতিরে সর্বসম্মতিক্রমে শর্মিলাকে আশ্রয় দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়৷’’

অনশন ছেড়ে রাজনীতির পথে মনিপুর থেকে আফস্পা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চানু৷ তাঁর লক্ষ্য মুখ্যমন্ত্রীর আসন৷ বলেছিলেন বিয়ে করতে চান তিনি৷ কিন্তু মনিপুরের মানুষ কি তাঁর পাশে দাঁড়াবে? প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে৷ চানু অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন, রাজনীতির নয়া ইনিংসে যদি মনিপুরের মানুষ তাঁর পাশে না থাকে, তাহলে বিয়ে করবেন তিনি৷