আগামী তিন সপ্তাহ কলকাতা বিমানবন্দরে দেশের ৬ শহর থেকে কোনও বিমান আসবে না। শনিবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আগেই এই বিষয়ে আর্জি জানানো হয়েছিল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিষেবা মন্ত্রকের কাছে। রাজ্য সরকারের তরফে চিঠি লেখা হয়েছিল। তারপরই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হচ্ছে।

দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই, পুনে, নাগপুর, আমেদাবাদ থেকে কোনও বিমান অবতরণ করবে না কলকাতা বিমানবন্দরে। এইসব জায়গায় সংক্রমণ এত বেশি পরিমাণে ছড়িয়েছে, সেই আশঙ্কা থেকেই নেওয়া হয়েছে এমন সিদ্ধান্ত।

রাজ্য সরকারের আবেদন মেনেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করেছে কেন্দ্র। তবে সুরাত ও ইন্দোরের সঙ্গেও বিমান যোগাযোগ বন্ধ করার আর্জি জানানো হয়েছিল। কিন্তু, তা ফলপ্রসূ হয়নি।

৬ থেকে ১৯ জুলাই পর্যন্ধ বন্ধ থাকবে বিমান পরিষেবা।

রাজ্যের দুটি বিমানবন্দরের ক্ষেত্রেই এই পরিষেবা বন্ধ করতে চেয়েছিল রাজ্য। কলকাতা ও বাগডোগরা দুই ক্ষেত্রেই বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখতে চেয়ে এই চিঠি দিয়েছিল মমতা সরকার।

এর আগে কর্ণাটক ও তামিলনাড়ু এর আগে এই পরিষেবায় নিয়ম জারি করেছিল। যেসব জায়গায় সংক্রমণের হার বেশি, সেখান থেকে বিমান পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয় ওই দুই রাজ্য প্রশাসনের তফে। এবার একই সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.