রাঁচি: কিছুদিন আগে টুইট করে মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসরের জল্পনায় অবসান ঘটিয়েছিলেন সাক্ষী৷ এবার রাঁচির লোডশেডিং নিয়ে টুইটারে ক্ষোভ উগরে দিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের ‘ফার্স্ট লেডি’৷

ঝাড়খণ্ডে কোনও কারণ ছাড়াই মাঝে মধ্যেই বিদ্যুৎ পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ার ঘটনা আখছার ঘটে। যার জেরে পাঁচ থেকে সাত ঘণ্টা ধরে প্রায় প্রতিদিনই লোডশেডিংয়ে নাকাল হতে হয় ঝাড়খণ্ডবাসীকে। রাজধানী রাঁচিও এর ব্যতিক্রম নয়৷ কোনও কারণ ছাড়াই বিদ্যুৎ পরিষেবা বন্ধ থাকায় অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। এই নিয়ে অনেকবার অভিযোগ জানিয়েও কোনও কাজই হয়নি। কিন্তু রাঁচির লোডশেডিং নিয়ে ধোনিপত্নী সাক্ষীর টুইট তোলপাড় ফেলে দেয়৷

টুইটটি মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় নেট দুনিয়ায়। টুইটে সাক্ষী জানিয়েছেন, রাঁচির বিদ্যুৎ পরিষেবার সমস্যা প্রতিটি মানুষের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে গিয়েছে। কোনও কারণ ছাড়াই রাঁচিতে প্রতিদিন চার থেকে সাত ঘণ্টা ধরে কারেন্ট থাকছে না। ১৯.৯.২০১৯ তারিখের কথা উল্লেখ করে সাক্ষী লিখেছেন ‘আজও পাঁচ ঘণ্টা ধরে রাঁচিতে ইলেকট্রিসিটি নেই’। অথচ বারবার লোডশেডিংয়ের পিছনে কোনও যুক্তিসঙ্গত কারণ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়াও আবহাওয়া ভালো রয়েছে, কোনও অনুষ্ঠানও নেই তবুও কেন এমটা হচ্ছে। আশা করি, আধিকারিকরা এই বিষয়ে অবশ্যই দৃষ্টিপাত করবেন’।

ঝাড়খণ্ডে আর কয়েকমাস পরেই বিধানসভা নির্বাচন। এই অবস্থায় ঝাড়খণ্ডের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদ্যুৎ পরিষেবা কতটা উন্নতি হয়েছে, তা নিয়ে সবর হয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাসও। সম্প্রতি সাক্ষীর এই টুইটটি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। শুধু তাই নয় সাক্ষীর এই টুইটকে সমর্থন জানিয়েছে ঝাড়খণ্ডের অনেকেই। তাঁদেরও সবার একই বক্তব্য। তাঁদের মধ্যে আবার কেউ কেউ সাক্ষীর এই টুইটটিকে ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী এবং সংশ্লিষ্ট কর্পোরেশনের লোকদেরও ট্যাগ করেছে।