নয়াদিল্লি: বৃহস্পতিবার কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার পর গোটা দেশ যখন আবেগে ভাসছে তখন কিন্তু কোনও ভাবেই ব্যবসায় মুনাফা জনিত কারণে পাকিস্তানের বিরাগভাজন হতে পারে না মুকেশ অম্বানির রিলায়েন্স গোষ্ঠী৷ না তাই অমন জঙ্গি হানা পরও এই শিল্পগোষ্ঠী পাকিস্তান সুপার লিগের তার ভূমিকা করছে৷

আরও পড়ুন: হদিশ মিলল পুলওয়ামা হামলার মূল ষড়যন্ত্রী রশিদ গাজীর

ওইদিন কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার কিছুক্ষণের মধ্যেই সংযুক্ত আরব আমিরশাহির দুবাইয়ে উদ্বোধন হল পাকিস্তান সুপার লিগে। আর পাকিস্তানের এই টি-টোয়েন্টি লিগের সম্প্রচারের বরাত ইতিমধ্যেই জুটেছে আইএমজি-রিলায়েন্সের ৷ দেখা গেল জঙ্গিহানার পর পাকিস্তানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে দেশজুড়ে ফের চাপান উতোর শুরু হলেও পাকিস্তানের রিলায়েন্স গোষ্ঠীর ব্যবসায়ে কোন ছেদ পড়ছে না।

গত জানুয়ারির মাসে পাকিস্তান বোর্ডের সঙ্গে এই বিষয়ে চুক্তি হয়েছে আইএমজি-রিলায়েন্সের। সেই সময় এই চুক্তির কথা বোর্ড- চেয়ারম্যান এহসান মানি নিজেই জানিয়েছিলেন৷

আরও পড়ুন: ‘বাবা’ ডাকতে শেখার আগেই একরত্তি মেয়ের সামনে কফিন বন্দি দেহ

দেখা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই দেশপ্রমের প্রমাণ দিতে জঙ্গি হামলার প্রতিবাদে করাচি সফর বাতিল করেছেন জাভেদ আখতারও-শাবানাআজমি৷ তাছাড়া দু’দেশের মধ্যে ক্রিকেট সম্পর্ক এখনও এতটাই খারাপ যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ রয়েছে ২০১৩ সালের পর থেকে।

এরপর পুলওয়ামার এমন ঘটনার পর এখন সে রকম সিরিজ কোনও রকম শুরুর সম্ভাবনাও নেই তা বলার অপেক্ষা রাখে না।বড় অদ্ভূত ভাবে পাকিস্তানের সঙ্গে রিলায়েন্সের ব্যবসা কিন্তু বন্ধ থাকছে না৷ রিলায়েন্সকে কোন রকম দেশপ্রেমের পরীক্ষা দিতে হয় না৷

আরও পড়ুন: ‘ভারতের আত্মরক্ষার অধিকার আছে’, দোভালকে বলল আমেরিকা

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য পাকিস্তান সুপার লিগের গ্রুপ লিগ ম্যাচগুলি আমিরশাহিতে হলেও তার পরবর্তী ম্যাচগুলি কিন্তু হবে পাকিস্তানেই। কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ফাইনাল পর্যন্ত সেই সব ম্যাচের সম্প্রচার করার কথা এই আইএমজি-রিলায়েন্সের। গত জানুয়ারি মাসে প্রকাশিত রিপোর্ট এই সম্প্রচারের স্বত্ব পাওয়ার পরে নাকি পাকিস্তানে গিয়ে প্রস্তুতি শুরু করেছিল আইএমজি-রিলায়েন্সের কর্মীরা।