নয়াদিল্লি: কাগজ দেখানো হবে না। এই বার্তা দিয়ে দেশ জুড়ে সরব হয়েছেন বিরোধীরা। এর মধ্যে এনপিআর-এ আদৌ নথি দিতে হবে কিনা, তা স্পষ্ট করল কেন্দ্র।

দেশে জনগণনার আগে এনপিআর করার কথা বলেছে মোদী সরকার। এর বিরোধিতায় সরব হয়েছিল বিরোধীরা। যদিও মোদী সরকার প্রথম থেকেই দাবি করেছে যে, এনপিআরের জন্য কোনও কাগজ দেখাতে হবে না। কারণ বিরোধীদের অভিযোগ ছিল এনপিআরের আড়ালে এনআরসি করাতে চাইছে মোদী সরকার। তাই আবারও কেন্দ্র সুনিশ্চিত করে জানাল এনপিআরের জন্য কোনও কাগজ লাগবে না।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই এনপিআর নিয়ে দেশবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন। জানিয়েছেন, এনপিআরের জন্য কোনও কাগজের প্রয়োজন হবে না। তিনি আরও জানিয়েছেন, এনপিআরে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করবেন সরকারি আধিকারিকরা। তবে কোনও তথ্যের জন্য কোনও কাগজ দেখাতে হবে না।

এনপিআরের আড়ালে এনআরসি কার্যকর করতে চাইছে মোদী সরকার। যদিও আজই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে গোটা দেশে এনআরসি করার কোনও পরিকল্পনা সরকারের নেই। ২০১০ সালে প্রথম এনপিআর হয়েছিল। তার পরে হয় ২০১৫ সালে।

লোকসভায় লিখিত জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, দেশ জুড়ে এনআরসি চালু করার কোনও পরিকল্পনা এখনই নেই। মঙ্গলবার লোকসভায় একথা জানানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই জানিয়েছেন, জাতীয় স্তরে এনআরসি চালু করার ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

যেহেতু এনআরসি চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি, তাই এনআরসি হলে তাতে ভারতীয় নাগরিকদের উপর কী প্রভাব পড়বে, সে ব্যাপারেও কোনও প্রশ্ন উঠছে না।

মোদী সরকার এনপিআর ঘোষণা করার পরেই তার বিরোধিতা শুরু করেছে অবিজেপি রাজ্যগুলি। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবার আগে এনপিআরের বিরোধিতায় সরব হয়েছে। তিনি রাজ্যে এনপিআর করবেন না বলে ঘোষণা করেছেন।