স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : বৃষ্টি নেই, অতএব হু হু করে পারদ চড়তে শুরু করেছে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। আবারও ৪০ ছুঁই ছুঁই দক্ষিণের বেশীরভাগ জেলার পারদ। অল্প বৃষ্টি হয়েছে উত্তরবঙ্গে। তবে সেখানে তুলনামূলক কমই রয়েছে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির তাপমাত্রা।

বৃহস্পতিবার রাতে ব্যাপক বৃষ্টি হয় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্রই বৃষ্টির খবর মিলেছিল। সন্ধ্যা থেকে মাঝ রাত দফায় দফায় বিভিন্ন সময়ে বৃষ্টি হয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায়। ফলে অস্বস্তিকর গরম কমেছিল দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলাতে। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের মাঝে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে, তার জেরেই এই বৃষ্টি বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। সেই প্রভাব কাটতেই শুরু হয়েছে গরমের স্বাবাভাবিক দাপট।

আসানসোলের গত ২৪ ঘণ্টায় পারদ ছুঁয়েছে ৪০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, যা এই মুহূর্তে রাজ্যে সর্বোচ্চ, পরেই রয়েছে বাঁকুড়া ৪০.১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। কলাইকুণ্ডায় ৩৯.০। মেদিনীপুর , পানাগড় ও শ্রীনিকেতনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে ৩৮.৪ ,৩৮.৮, ৩৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্নের মধ্যে সবথেকে বেশি তাপমাত্রা রয়েছে ডায়মন্ড হারবারে। সেখানে সকালেই তাপমাত্রা ২৮.০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছে গিয়েছে। এরপরে রয়েছে হলদিয়া ২৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বালুরঘাট ২৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এরপরেই স্থান কলকাতা , দমদম ও সল্টলেক।

কলকাতার সকালের তাপমাত্রা অর্থাৎ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ফের চড়তে শুরু করেছে। শনিবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। সপ্তাহের মাঝে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বাড়লেও গত কয়েকদিন সকালবেলা থেকে যে পরিমাণ অস্বস্তিকর গরম হচ্ছিল তা তুলনামূলকভাবে কমেছিল। এমনটাই জানা গিয়েছিল হাওয়া অফিস সূত্রে। শুক্রবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি ছিল। বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম ছিল। শুক্রবার তা বেড়ে ৩৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়েছে , যা স্বাভাবিক। দমদমে সকালের তাপমাত্রা ২৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বৃষ্টি হয়েছে ছিটেফোঁটা। সল্টলেকে অবশ্য যথারীতি সকালেই পারদ পৌঁছে গিয়েছে ২৭.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ওই অঞ্চলে বৃষ্টি হয়নি। দুই অঞ্চলে সকালে আপক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ৭৬ ও ৭৭ শতাংশ।

উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির মধ্যে জলপাইগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কালিম্পঙে তাপামাত্রা ১২.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কোচবিহারে ১৯.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।