ফাইল ছবি

কলকাতা: লন্ডনে গ্রেফতার হয়েছেন পলাতক ব্যবসায়ী নীরব মোদী। স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রীয় সরকারের একটা বড় সাফল্য। আর ভোটের আগে বিজেপি সরকারের সাফল্যই দেখছে গেরুয়া শিবির। তবে এতে মোদী সরকারকে কোনও ক্রেডিট দিতে রাজি নন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার নীরব মোদীর গ্রেফতারি খবর পেয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্য, এটা একটা ‘গট আপ কেস।’ নীরব মোদীর কথা বলতে গিয়ে রাহুলের মত ইনিও বলে ফেলেন ‘নরেন্দ্র মোদী।’

এদিন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি প্রথমেই বলেন, ‘একটা রবীন্দ্রসঙ্গীতের কথা মন পড়ছে, তুমি রবে নীরবে হৃদয়ে মম’।

১৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা তছরূপে অভিযুক্ত নীরব মোদী ব্রিটেনে পালিয়ে গিয়েছিলেন। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসতেই নীরব মোদী দেশ ছাড়েন। সেই থেকে লন্ডনেই আত্মগোপন করে ছিলেন তিনি। প্রায় ১৭ মাস আত্মগোপন করে থাকার পর অবশেষে বুধবার লন্ডনে গ্রেফতার হন নীরব মোদী।

নীরব দেশ ছাড়ার পর তুমুল চাপে পড়ে গিয়েছিল মোদী সরকার। অভিযোগ ওঠে নীরব মোদীকে ফেরত পেতে যথেষ্ট তত্পর নয় ভারত। লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার আদালত নীরব মোদীর বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগের স্বপক্ষে ভারত সরকারকে নথি পেশ করতে বললেও সেই নথি জমা পড়েনি। এতে অস্বস্তি বাড়ে সরকারের।

অনেকেই বলেন, মোদীর সঙ্গে পরামর্শ করেই নীরব দেশ ছেড়েছেন। নীরব মোদী ও তার মামা মেহুল চোকসির অন্তর্ধান নিয়ে প্রায় প্রতিদিনই প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছিল শাসকদল বিজেপির নেতাদের। অবশেষে ১৭ মাস পর গ্রেফতারি।

মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, এতে সেই সাংবাদিককে ক্রেডিট দেওয়া উচিৎ যিনি নীরব মোদীর অবস্থানের কথা ফাঁস করেন। এতে বিজেপি সরকারের কোনও ক্রেডিট নেই বলেই মনে করেন তিনি।