প্রতীকি ছবি

শ্রীনগর: নাগরিক সংশোধনী বিল নিয়ে এবার মুখ খুললেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির মেয়ে সানা ইলতিজা। এই বিলের ফলে ভারতে মুসলিমদের আর কোনও স্থান রইল না বলে জানিয়েছেন তিনি।

বুধবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পাস হয়ে যায় নাগরিক সংশোধনী বিল। এরপরেই এই বিলের বিরধিতায় সুর চড়িয়েছিলেন বিভিন্ন বিরোধী দল গুলি। ওই দিনই জম্মু-কাশ্মীরে মেহবুবা মুফতির দল পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির টুইটার হ্যান্ডেল থেকে এই বিলের বিরোধিতা করে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন মুফতি-কন্যা। একটি টুইট করে তিনি লেখেন ‘ভারত- যে দেশে মুসলিমদের কোনও স্থান নেই।’

গত ৫ অগস্ট সংবিধানের ৩৭০ ধারার বিলোপ ঘটিয়ে জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল হিসাবে ঘোষণা করে কেন্দ্র। সেই সঙ্গেই উপত্যকার বেশ কিছু রাজনৈতিক নেতাদের আটক করে রাখা হয়। সেই থেকে রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিকেও গৃহবন্দি করে রাখা হয়।

এর মাঝেই বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় কার্যত বিনা বাধায় পাস হয়ে যায় নাগরিক সংশোধনী বিল। এই বিলের ফলে আফগানিস্তান,পাকিস্তান,বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দু,বৌদ্ধ,জৈন এবং ক্রিশ্চানরা যারা ওইসব দেশে নির্যাতনের শিকার হয়ে ২০১৪ মে-র আগে ‘শরণার্থী’ হিসাবে ভারতে এসেছিলেন তাঁদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এই বিলে মুসলিম সম্প্রদায়ের কথা উল্লেখ করা হয়নি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় এই বিল পাস হওয়ায় শীঘ্রই এই বিল সংসদেও পেশ হবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

তবে, এই প্রথম নয় এর আগেও কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একাধিকবার তোপ দেগেছিলেন মুফতি-কন্যা।

চার মাস আগে যখন জম্মু-কাশ্মীরের ‘বিশেষ মর্যাদা’ খারিজ করে দিয়েছিল কেন্দ্র। তখনও ঠিক একইভাবে সরকারের সমালোচনা করেছিলেন সানা। সেই সময়ে তিনি পিডিপির টুইটার হ্যান্ডেল দিয়ে টুইট করে লেখেন, ‘কেন্দ্রের এই ধরনের কাজ থেকেই অশুভ ইঙ্গিতের আভাস পাওয়া যায়। এই আইন এনে মুসলিম অধ্যুষিত এলাকার নকশাই বদলে দিতে চায়। মুসলিমদের অধিকার খর্ব করে তাঁদের দ্বিতীয় শ্রেণীর নাগরিক বানাতে চাইছে সরকার।’

এবার আবারও নাগরিক সংশোধনী বিল নিয়ে মুখ খুললেন মেহবুবা মুফতির কন্যা সানা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও