ফাইল ছবি

পাটনা: পোশাক নির্দেশিকা জারি করে বিপাকে পড়ল পাটনার জেডি মহিলা কলেজ। অদ্ভুদ এই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে মুসলিম পড়ুয়ারা কলেজ চত্বরে বোরখা পরে ঢুকতে পারবে না। কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফের একটি নোটিশে এমনটাই উল্লেখ রয়েছে।

শুধু তাই নয়, কলেজ কর্তৃপক্ষ পড়ুয়ারা এই নিয়ম পালন না করে, তাহলে তাঁকে ২৫০ টাকা জরিমানা করা হবে, এমনও জানানো হয়। এছাড়াও নির্দিষ্ট একটি পোশাক ঠীক করে দেওয়া হয়।

পাটনা কলেজের এই সার্কুলারে অনেক ছাত্রীই আপত্তি জাহির করেছে। তাঁদের বক্তব্য অনুযায়ী, কলেজে বোরখা পড়ায় সমস্যটা কোথায়?

কলেজের উপাচার্য ডঃ শ্যামা রায় জানান, আমরা এই ঘোষণা আগেই করে দিয়েছিলাম। নতুন সেশনের অরিয়েন্টেশনের সময় ছাত্রীদের এই ব্যাপারে বলা হয়েছিল। ছাত্রীদের মধ্যে সমসত্ত্বতা আনার জন্য আমরা এই নিয়ম চালু করেছি।

উনি জানান, ছাত্রীদের শুক্রবার পর্যন্ত ড্রেস কোড পালন কোর্টে হবে, আর শনিবার তাঁরা নিজের ইচ্ছেমত ড্রেস পড়ে আসতে পারে। উনি জানান, এটা কলেজের নিয়ম, আর এটিকে পালন করতেই হবে।

পাটনা হাইকোর্টের বরিষ্ঠ আইনজীবী প্রভাকর টেকরিবাল জানান, আইনজীবীরা আদালতে ড্রেস কোড পালন করে। আদালতে কেউ বোরখা পড়ে আসেনা। আর এই নিয়ম কলেজেও চালু হলে, আপত্তি জাহির করা অনুচিত। এই নিয়মকে আইনেও অবৈধ বলা যাবেনা।

আরেকদিকে কিছু মৌলানা এই নিয়মে আপত্তি জাহির করেছে। তাঁরা জানিয়েছে যে, যেহেতু নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে, সেহেতু এটার বিরোধিতা হবেই। জেডি মহিলা কলেজের এই পদক্ষেপ ভুল। এই নিয়মে উপাচার্যের মানসিকতা কি বোঝা যায়। মৌলানা বলেন যে, মুসলিমদের নিশানা করেই এই নিয়ম বানানো হয়েছে। এটা সমাজকে ভাঙার কাজ চলছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ