নয়াদিল্লি: নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার জানিয়েছেন গত ৭০ বছরে কেউ কখনও এমন অবস্থা দেখেনি যখন গোটা আর্থিক ব্যবস্থাটাই একটা চাপের মুখে৷ দেশের এমন আর্থিক মন্দা মোকাবিলা করতে বৃহস্পতিবার নীতি আয়োগ বিশেষ পদক্ষেপ নিতে চলেছে যা দিয়ে এই আর্থিক ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হবে৷

রাজীবকুমার জানিয়েছেন, সরকার তেমন ব্যবস্থা নিয়ে যাতে বেসরকারি উদ্যোগ ভয় কাটিয়ে বিনিয়োগ করতে উৎসাহিত হয়৷ তাঁর আশা, বেসরকারী বিনিয়োগ ভারতকে মধ্য আয়ের জাল থেকে মুক্ত করবে।

আর্থিক ক্ষেত্রের এই চাপকে অভূতপূর্ব হিসাবে উল্লেখ করে, তিনি বলেছেন, গত ৭০ বছরে এর আগে কখনও গোটা আর্থিক ব্যবস্থাকে এমন চাপের মুখে পড়তে হয়নি৷কেউ কাউকে বিশ্বাস করতে পারছে না…. বেসরকারি ক্ষেত্রে কেউ কাউকে ঋণ দিয়ে এগিয়ে আসছে না সকলেও নগদ টাকা হাতে নিয়ে বসে রয়েছে৷ তাই এমন বিশেষ কোনও পদক্ষেপ নিতে হবে বলেই মনে করছেন তিনি৷

যা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি মনে করান , আর্থিক ক্ষেত্রকে মাথায় রেখেই বাজেটে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে, যা আর্থিক বিকাশকে ত্বরান্বিত করতে পারে কারণ তা যে ২০১৮-১৯ সালেই পাঁচ বছরে সর্বনিম্ন ৬.৮ শতাংশে নেমে এসেছে৷ আর্থিক ক্ষেত্রে চাপের জেরে আর্থিক মন্দার দিকে দেশকে নিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান ৷ তাঁর মতে এই পরিস্থিতি শুরু হয়েছিল ২০০৯-১৪ সালে দেওয়া ঋণগুলি ক্রমশ অনুৎপাদক সম্পদে পরিণত হওয়ায়৷

এভাবে অনুৎপাদক সম্পদ বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যাংকের পক্ষে নতুন করে ঋণ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না৷ অ-ব্যাংকিং আর্থিক সংস্থাগুলিতে বড় অংকের ঋণ ম্যানেজ করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায় সেগুলি ঋণ খেলাপি হয়ে যাওয়ায়৷ গোটা পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে নোটবন্দি, জিএসটি এবং দেউলিয়া বিধি চালুর আগের তুলনায় নগদের ঘাটতির ফলে পরিস্থিতি জটিল হয়ে গিয়েছে যার কোনও সহজ উত্তর নেই বলে জানান তিনি৷ তিনি আশ্বাস দেন, এই সময়ে সরকারের কোনও অভিপ্রায় নেই কোনও বেসরকারি সংস্থার পেমেন্ট আটকে রাখার৷