নয়াদিল্লি: কৃষকদের জন্য কল্পতরু মোদী সরকার। এবার কৃষিপণ্য পরিবহনে গতি আনতে উদ্যোগ নিল কেন্দ্রীয় সরকার। সেই লক্ষ্যেই এবার রেল ও আকাশপথে কৃষিপণ্য পরিবহনের জন্য নয়া ঘোষণা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের। কৃষিপণ্য পরিবহনে পিপিপি মডেলে কিষাণ রেল প্রকল্পের ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। রেলপথে এবার দুধ, মাংস, মাছ ইত্যাদি নিয়ে যাওয়ার জন্য চালু হবে কিষাণ রেল প্রকল্প।

রেলের সেই কোচগুলিতে কৃষিপণ্য রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও রাখা হবে বলে এদিন ঘোষণা করেন নির্মলা সীতারমন। একইভাবে আকাশপথে কৃষিপণ্য পরিবহনের জন্য কৃষি উড়ান প্রকল্পের ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের সঙ্গে এব্যাপারে আলোচনা হবে। আকাশপথে কৃষিপণ্য দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি দেশের বাইরেও নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে চিন্তাভাবনা শুরু করেছে কেন্দ্র।

অন্যদিকে, ২০২২ সালের মধ্যেই দেশের কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করাও কেন্দ্রের লক্ষ্য বলে শনিবার আর্থিক বাজেট পেশ করতে গিয়ে বলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। একইসঙ্গে কৃষিক্ষেত্রে ১৬টি অ্যাকশন প্ল্যান তৈরিরও ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। এরই পাশাপাশি কৃষকদের আর্থিকভাবে শক্তিশালী করতে জলের সমস্যা রয়েছে এমন এলাকার কৃষিতে ১৫ লক্ষ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে বলে এদিন জানান কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

দ্বিতীয় মোদী সরকারের দ্বিতীয় বাজেট পেশ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের। আর্থিক ক্ষেত্রে একাধিক ঘোষণার পাশাপাশি কৃষকদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা জানান কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কৃষকদের আর্থিক পরিস্থিতির উন্নয়ন করাই কেন্দ্রীয় সরকারের লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন নির্মলা সীতারমন। আগামী ২০২২ সালের মধ্যে দেশের কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করাই কেন্দ্রীয় সরকারের মূল লক্ষ্য বলে এদিন জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

এমনকী কৃষির উন্নয়নে ঋণের অঙ্কও বাড়ানোর কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। দেশের মধ্যে জলসেচের সমস্যা রয়েছে এমন ১০০টি জেলাকে বেছে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন নির্মলা। সেই জেলাগুলিতে বিপুল অঙ্কের কৃষি ঋণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে বাজেটে। জলের সমস্যা রয়েছে এমন ১০০ জেলার জন্য ১৫ লক্ষ কোটি টাকা পর্যন্ত কৃষিঋণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে বলে এদিন বাজেট পেশের সময় জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

কৃষিক্ষেত্রে সারের ব্যবহার নিয়েও এদিন নয়া ঘোষণা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর। সারের ব্যবহারে সমতা আনা হচ্ছে বলে এদিন জানান নির্মলা সীতারমন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কৃষিকাজে সারের ব্যবহারে সমতা আনার জন্য কৃষকদের উৎসাহ দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। রাসায়নিক সার ব্যবহারের ক্ষেত্রেও কৃষকদের নতুন-নতুন পরামর্শ দেওয়া হবে।’