নয়াদিল্লি: অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে কিছু নতুন সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ শুক্রবার তাঁর নতুন ঘোষণা নিয়েই সরগরম দেশের বাজার৷ মোদী সরকার দ্ব্তীয় ইনিংসের ১০০ দিনের মাথায় অর্থনৈতিক মন্দার মুখ দেখেছে৷ দেশে জিডিপি বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশেরও নিচে নেমে গিয়েছে৷ উপমহাদেশে ভারতের বৃদ্ধির হার পাকিস্তানের থেকেও নীচে – এই কথা শুনিয়ে মোদী ২.০ সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিরোধীরা৷

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে চিন্তাপ্রকাশের পাশাপাশি যে ৬টি উপায়ে তা পুনস্থাপন করা যেতে পারে তাও প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷ শুক্রবার নির্মলার এই ঘোষণার পরেই মন্ত্রের মতো কাজ হয়৷ উঠে দাঁড়ায় শেয়ার বাজার।

শুক্রবার দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মালা করপোরেট ট্যাক্স রেট কিছুটা কমিয়ে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের স্বস্তি দিতে চেয়েছেন৷ সেস এবং সারচার্জ সমেত করপোরেট ট্যাক্সকে ২৫.১৭ শতাংশ’তে নামিয়ে আনতে চেয়েছেন নির্মলা৷ আগামী ১ এপ্রিল থেকে তা কার্যকর হবে৷ পুরানো শেয়ার পুনরায় কিনতে বাড়তি চার্জ বা মূল্য লাগবে না, ঘোষণা করেছেন নির্মলা৷

তবে এই সুবিধাগুলি পাবে শেয়ারবাজারে নথীভুক্ত বা লিস্টেড কোম্পানিগুলি৷ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, যেসব কোম্পানিগুলি ২২ শতাংশ আয়কর স্ল্যাবে পড়ছে, তাদের মিনিমাম অলটারনেটিভ ট্যাক্স (ম্যাট) দেওয়ার প্রয়োজন নেই৷ দেশের ম্যানুফাকচারিং কোম্পানিগুলি ১৫ শতাংশ হারে আয়কর দিতে পারবে৷ কোনও ইনসেনটিভের প্রয়োজন পড়বে না৷ নতুন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিগুলির কার্যকরী ট্যাক্স হার ১৭.০১ শতাংশ হবে (সারচার্য এবং সেস সহ)৷

শুক্রবার জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠক বসে৷ ওই বৈঠক শুরুর আগে সাংবাদিকদের নির্মলা বলেন, ‘‘দেশের কোম্পানি এবং নতুন তৈরি হওয়া দেশের কোম্পানিগুলির ক্ষেত্রে কর্পোরেট ট্যাক্সের হারে ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এর ফলে বাজারে নতুন বিনিয়োগ পেতে সুবিধা হবে৷’’ প্রাথমিক ভাবে বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে সেনসেক্স ১৯০০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ নিফটিও ১১ হাজার পয়েন্টের উপরে উঠে যায়।