প্রতীকি ছবি

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: রাজ্যে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি এখনও জারি হয়নি। তার আগেই দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকা ফের খুলল টিএমসিপি৷ খুলে গেল বাঁকুড়ার ওন্দা মহাবিদ্যালয়ের টিএমসিপি কার্যালয়৷ বৃহস্পতিবার রাজ্যের মন্ত্রী তথা জেলার তৃণমূল নেতা শ্যামল সাঁতরা ও স্থানীয় বিধায়ক অরুপ খাঁয়ের উপস্থিতিতে ছাত্র সংসদ কার্যালয়ের ‘দখল’ নিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।

তৃণমূলের এই পদক্ষেপকে অগণতান্ত্রিক বলে দাবি করেছেন এলাকার বিজেপি নেতৃত্ব৷ গায়ের জোরে কার্যালয় খুলেছে তৃণমূল, এমনই অভিযোগ স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের৷ যদিও বিজেপির অভিযোগে আমল দিতে নারাজ তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ও জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব৷

২০১১ সালে রাজ্যে তৃণমূলের সরকার হওয়ার পর থেকেই ওন্দা কলেজের চাত্র সংসদ দখলে রেখেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ৷ পরে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়ার দু’টি আসনই বিজেপির দখলে চলে যায়৷ ধীরে ধীরে এলাকায় সংগঠন বাড়াতে শুরু করে বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপি৷ এলাকার রাজনৈতিক টানাপোড়েনের জেরে ওন্দা কলেজের ছাত্র সংসদের কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়৷ একটানা বেশ কিছুদিন বন্ধ ছিল টিএমসিপির এই কার্যালয়টি৷ শেষমেশ এদিন রাজ্যের মন্ত্রী ও স্থানীয় বিধায়কের উপস্থিতিতে বন্ধ থাকা সেই কার্যালয় ফের চালু করল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।

ওন্দা কলেজের কার্যালয় চালু নিয়ে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি তীর্থঙ্কর কুণ্ডু জানান, ২৩ মে লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর দিন থেকে বাঁকুড়া জেলায় এবিভিপির দেখা মিলেছে। টিএমসিপি বছরভর নানা কর্মসূচি নিয়ে পড়ুয়াদের সঙ্গে থাকে বলে দাবি ওই ছাত্র নেতার৷ ছাত্রছাত্রীদের সুবিধা দিতেই ছাত্র সংসদের ভোট না হলেও কার্যালয় চালু রাখতে হচ্ছে বলে জানান টিএণসিপি নেতা তীর্থঙ্কর কুণ্ডু৷

তৃণমূলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরার অভিযোগ, ‘লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা কলেজে হামলা করে৷ নানাভাবে অধ্যক্ষের উপর চাপ সৃষ্টি করে। এই ঘটনায় ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। সেকারণেই সাময়িকভাবে বন্ধ থাকার পর সংসদ কার্যালয়টি ছাত্রছাত্রীরাই উদ্যোগ নিয়ে খুলেছে’। জনপ্রতিনিধি হিসেবে কলেজ পরিদর্শনের পাশাপাশি অধ্যক্ষের সঙ্গে কলেজের মানোন্নয়নের বিষয়েও কথা বলেছেন বলে জানান শ্যামল সাঁতরা৷

যদিও এই ওন্দা কলেজের সংসদ কার্যালয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ‘গায়ের জোরে’ দখল করেছে বলে অভিযোগ বিজেপির৷ দলের জেলা যুব মোর্চার সাধারণ সম্পাদক সৌগত পাত্রের অভিযোগ, ‘সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ওন্দা কলেজের সংসদ কার্যালয় খোলা হয়েছে৷ ছাত্র সংসদ নির্বাচনের আগে তৃণমূল নেতারা এলাকায় সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করছেন৷’

ওন্দা কলেজের অধ্যক্ষ বিজয়কান্ত দুবে বলেন, ‘পারস্পরিক দ্বন্দ্বের কারণে পঠন-পাঠনে সমস্যা তৈরি হওয়ায় সাময়িকভাবে সংসদ কার্যালয় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তবে সব এখন ছাত্র সংসদ কার্যালয়ের তালা খুলে দেওয়া হয়েছে৷’