মুম্বই: চার মাস বাদেই মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন৷ গঠিত হবে নতুন সরকার৷ মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসবেন নতুন ব্যক্তি৷ আর চার মাস বাদেই মুখ্যমন্ত্রী পদে শিবসেনার কোনও ‘সৈনিক’কে দেখা যাবে বলে জোর গলায় দাবি করলেন দলের সুপ্রিমো উদ্বভ ঠাকরে৷ সেই মতো দলের কর্মীদের এখনই আদা জল খেয়ে ময়দানে নেমে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি৷

১৯ জুন শিবসেনার ৫৪ তম প্রতিষ্ঠা দিবস৷ তার আগের দিন দলের মুখপাত্র ‘সামনায়’ প্রকাশিত সম্পাদকীয়তে লেখা হয়, এই ৫৪ তম বর্ষে মহারাষ্ট্রের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হবে শিবসেনা থেকে৷ তাই এখন থেকেই আমাদের কাজে লেগে পড়তে হবে৷

এর আগে শিবসেনা থেকে দু’জন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হন৷ ১৯৯৫ সালের ১৪ মার্চ মুখ্যমন্ত্রী হন মনোহর যোশী৷ তিনিই প্রথম মহারাষ্ট্রের অকংগ্রেসী মুখ্যমন্ত্রী হন৷ প্রায় ৪ বছর রাজ্যপাট সামলান৷ কিন্তু ১৯৯৯ সালে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে তাঁর সরকারের বিরুদ্ধে৷ ইস্তফা দেন মনোহর যোশী৷ ওই বছর ১ ফেব্রুয়ারি শিবসেনা থেকে পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হন নারায়ণ রানে৷ এক বছরের কম সময় তিনি এই পদে বহাল থাকেন৷ ২০ বছর পর আবারও মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে একজন শিবসেনার সৈনিককে বসাতে উঠে পড়ে লেখেছে উদ্বভ ঠাকরে৷

কিছুদিন আগে শোনা গিয়েছিল শিবসেনার পক্ষ থেকে উপমুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নাম প্রস্তাব করা হতে পারে আদিত্য ঠাকরের৷ মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবীশের সঙ্গে এই প্রসঙ্গে ইতিমধ্যেই কথাবার্তা শুরু করেছে শিবসেনা বলে সূত্রের খবর৷

শিবসেনাকে উদ্ধৃত করে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে ডিএনএ৷ রিপোর্ট বলছে বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে এগোতে চাইছে শিবসেনা৷ তাদের চোখ এখন মহারাষ্ট্রের উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে৷ আর সেই পদের জন্যই আদিত্যর নাম প্রস্তাব করা হবে৷ শুক্র বা শনিবার এই ইস্যুতে বৈঠকে বসবে শিবসেনা কোর কমিটি৷ মহারাষ্ট্র মন্ত্রিসভার আর কোন কোন পদের জন্য দাবি জানানো হবে, আলোচনা চলবে সেই নিয়ে৷