কলকাতা: বইমেলা বইমেলা বই দিয়ে ভরা/ গল্প-কবিতা-গান মিঠেকড়া ছড়া/ কারও সাথে বই হাতে বুক চেপে ধরা/ ট্যাঁক ফাঁকা নেই টাকা কেউ মনমড়া! বইমেলা বইমেলা বই বই বই/ কাছে দূরে মেলা জুড়ে লোক থই থই/ তাই বলি এ মেলার বিকল্প কই?

বইমেলাকে এভাবেই ছড়ায় বেঁধেছিলেন প্রখ্যাত ছড়াকার ভবানীপ্রসাদ মজুমদার। শীতকাল মানেই বইমেলার মরশুম। জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে বইমেলা। এখন বইপ্রেমীদের পৌষমাস। শীতকালের এই বই-উৎসবের জন্য সারা ধরে বছর অপেক্ষা করে থাকেন অনেকে। কারণ বইমেলার দিনগুলোতেই জ্ঞানের বিশ্বে ভ্রমণ করার সুযোগ মেলে সহজে। বইমেলার মাঠে দুই মলাটের ভেতর দিয়ে পাঠকের দরবারে ধরা দেন সাহিত্যিকরা।

মঙ্গলবার থেকে শুরু হতে চলেছে নিউটাউন বইমেলা। উদ্বোধন করবেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম এবং দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। মেলা চলবে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। মেলার সময় প্রতিদিন দুপুর ১টা থেকে রাত ৮টা এবং ছুটির দিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৯টা। নতুন বইয়ের সম্ভার নিয়ে মেলার মাঠে হাজির হচ্ছেন বাংলার বহু নামযাদা প্রকাশনা সংস্থা। বইমেলা উপলক্ষে প্রতিদিন থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে রয়েছেন চিত্রশিল্পী এবং রাজ্যসভার সাংসদ যোগেন চৌধুরী, হিটকোর চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন, কবিতা আকাদেমির সভাপতি সুবোধ সরকার, নজরুল আকাদেমির সভাপতি জয় গোস্বামী, টেকনো ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর সত্যম রায়চৌধুরী-সহ আরও অনেকে। নিউটাউন বইমেলার অন্যতম সদস্য প্রশান্ত মাজী বলেন, “অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে আমার বইমেলার আয়োজন করি। এখন নিউটাউন বইমেলা অনেকের কাছেই পরিচিতি লাভ করেছে। এবার ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে বিশেষ মর্জাদায় স্মরণ করা হবে। এছাড়াও থাকছে বিচিত্রানুষ্ঠান।”

উপস্থিত থাকবেন আশিস গিরি, রিনা গিরি, বীথি চট্টোপাধ্যায়, রূপা মজুমদার, দেবাশিস সাউ প্রমুখ। ঋক প্রকাশনীর আমন্ত্রণে শিশুসাহিত্যে সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায় নিউটাউন বইমেলা প্রাঙ্গণে আসবেন। প্রতিবারের মতো এবারও বইমেলার জন্য খুশি স্থানীয় বইপ্রেমীরা।